কাঁচা খাবার রান্না করা খাবারের চেয়ে বেশি স্বাস্থ্যকর।

রান্না করা খাবার স্বাদ উন্নত করতে পারে তবে এটি পুষ্টির উপাদান পরিবর্তন করে। খাবার রান্না করার সময় কিছু ভিটামিন নষ্ট হয়ে যায়। কিছু খাবার কাঁচা খাওয়ার সময় বেশি পুষ্টিকর হয়, আবার কিছু রান্না করার পরে বেশি পুষ্টিকর হয়।

খাবার আমরা সবাই খাই। কিন্তু কেউ সেই খাবার কাঁচা অবস্থাতেই বেশি পছন্দ করেন, আর কেউ পছন্দ করেন রান্না করা অবস্থায়। অনেকে বলে থাকেন, খাবার রান্না করলে এর অনেক পুষ্টি উপাদান চলে যায়।

কাঁচা ফল এবং শাকসবজি খাওয়ার কিছু সুস্পষ্ট উপকারিতা রয়েছে। কিছু খাবারে বিপজ্জনক ব্যাকটিরিয়া এবং অণুজীব আছে যা কেবল রান্না করার মাধ্যমে নির্মূল করা হয়।
আপনি যখন কোনও খাবার গ্রহণ করেন, তখন আপনার দেহের হজম এনজাইমগুলি এটিকে অণুতে পরিণত করতে সহায়তা করে। আপনি যে খাবারটি খাচ্ছেন তাতে হজমকে সহায়তা করে এমন এনজাইমও রয়েছে। উচ্চতর তাপমাত্রার সংস্পর্শে আসলে এনজাইমগুলি নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়।

রান্না করা খাবার খাওয়ার সুবিধা হল খেতে বেশ সহজ এবং হজম করাটাও সহজ হয়। অন্যদিকে কাঁচা খাবারে এনজাইমপূর্ণ থাকলেও সেটা হজম করার জন্য আমাদের শরীরের বেশি পরিমাণ শ্রম দিতে হয়। কিছু খাবারে রান্না করার পর পুষ্টির পরিমাণ বেড়ে যায়। খাবার রান্না করে খেলে খাবারের অনেক জীবাণু নষ্ট হয়ে যায়।

কিছু জল দ্রবণীয় ভিটামিন রান্না করার সময় হারিয়ে যায়

কাঁচা খাবার রান্না করা খাবারের চেয়ে পুষ্টিতে সমৃদ্ধ। কিছু পুষ্টি রান্না করা খাবার থেকে বেরিয়ে যায়। ভিটামিন “সি” এবং “বি” ভিটামিনের মতো জল দ্রবণীয় ভিটামিনগুলি রান্নার সময় হারিয়ে যায়।

ফুটন্ত শাকসবজি থেকে জল দ্রবণীয় ভিটামিনের পরিমাণ ৫০-৬০% হ্রাস পায়। এছাড়া ভিটামিন “এ” রান্না করার সময় হারিয়ে যায়।

রান্না কিছু সবজির অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট ক্ষমতা বাড়ায়

গবেষণায় দেখা গেছে যে, শাকসবজি রান্না বিটা ক্যারোটিন এবং লুটিনের মতো অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলির কার্যকরিতা বৃদ্ধি করে। বিটা ক্যারোটিন একটি শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট যা শরীর ভিটামিন “এ” রূপান্তরিত করে। বিটা ক্যারোটিন সমৃদ্ধ একটি ডায়েট হৃদরোগের ঝুঁকির সাথে যুক্ত হয়েছে।

রান্না করা খাবার থেকে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট লাইকোপিন শরীরে সহজেই শোষিত হয়। লাইকোপেন পুরুষদের মধ্যে প্রস্টেট ক্যান্সারের ঝুঁকি এবং হৃদরোগের ঝুঁকি হ্রাস করে।
একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, রান্না করা টমেটো থেকে ভিটামিন “সি” ২৯% হ্রাস পেয়েছিল, অন্যদিকে রান্না করার ফলে লাইকোপিনের পরিমাণ দ্বিগুণ হয়ে গেয়েছিল।

রান্না ক্ষতিকারক ব্যাকটিরিয়া এবং অণুজীবকে হত্যা করে

কিছু রান্না করা খাবার খাওয়া ভাল, কারণ কাঁচা খাবারে ক্ষতিকারক ব্যাকটিরিয়া থাকতে পারে। রান্না করার ফলে কার্যকরভাবে ব্যাকটিরিয়া মরে যায়। বেশিরভাগ ব্যাকটিরিয়া ১৪০ ডিগ্রি ফারেনহাইটে তাপমাত্রায় বাঁচতে পারে না। ই কোলি, সালমোনেলা, লিস্টারিয়া এবং ক্যাম্পিলোব্যাক্টর এমন কিছু সাধারণ ব্যাকটিরিয়া যা কাঁচা খাবারে থাকে।

কাঁচা খাবার না রান্না করা খাবার

তবে আপনি রান্না করা সবজি খাবেন না কাঁচা খাবেন তা আপনি কোন ধরনের খাবার খাবেন তার উপর নির্ভর করে। কাঁচা ব্রকলিতে রান্না করা ব্রকলির তুলনায় ক্যান্সারে লড়াইকারী যৌগ সালফোরাফিনের পরিমাণের তিনগুণ বেশি থাকে। তাই ব্রকলি কাঁচা খাওয়াই ভালো। এছাড়া বাঁধাকপি, পেঁয়াজ ও রসুন এগুলি খাঁচা খাওয়াই বেশি স্বাস্থ্যকর।

অন্যদিকে শিম, মাশরুম, টমেটো, গাজর, আলু, মাংস, মাছ, ডিম এগুলি রান্না করে খাওয়া বেশি ভালো।