ওজন বৃদ্ধি করার কার্যকরী খাবার।

বয়স ও উচ্চতা অনুযায়ী কোনো ব্যক্তির ওজন স্বাভাবিক ওজনের চেয়ে ১৫-২০ শতাংশ কম হলে তাকে কম ওজনের অধিকারী বলা হয়। যাদের বয়স অনুযায়ী শরীরের ওজন অনেক কম, তাদের চিন্তার শেষ থাকে না। ওজন কম হওয়ায় অনেকে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ খেয়েও ফল পায় না।

আমরা সকলেই জানি, বাংলায় একটা প্রবাদ আছে- স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল। অর্থাৎ স্বাস্থ্য ভালো থাকলে শরীর ও মন দুটোই ভালো থাকবে। কিন্তু আমাদের বর্তমান জীবনের অন্যতম একটি সমস্যা হলো স্থূলতা। ডায়াবেটিসের মতো স্থূলতা বহুরোগের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। তাই স্বাস্থ্যসচেতন মানুষ ওজন কমানোর জন্য দৌড়-ঝাঁপ শুরু করেন।

আমাদের সবারই ওজন আসলে ভারসাম্যপূর্ণ থাকা প্রয়োজন কারণ ওজন কমানো যেমন কঠিন ঠিক তেমনি ওজন বাড়ানোও কঠিন।

বিভিন্ন কারণে ওজন কম হতে পারে। অনিয়মিত খাদ্যাভ্যাস, জেনেটিক কারণ, মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যা ইত্যাদি। এমন কিছু খাবার আছে যেগুলি আমাদের ওজন বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। আসুন জেনে নেই ওজন বৃদ্ধি করার সহজ কিছু উপায় ও খাবার সম্পর্কে-

ডিম

ডিমে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন রয়েছে। শরীরের ওজন বাড়ানোর জন্য প্রোটিন খুবই প্রয়োজনীয়। তাছাড়া ডিমের কুসুমে রয়েছে প্রচুর ক্যালরি যা ওজন বাড়াতে সাহায্য করবে। তাই ওজন বাড়াতে প্রতিদিন সকাল-বিকাল ডিম খাওয়া ভালো।

কলা

প্রায় সব ডাক্তারাই শরীরের ওজন বাড়াতে কলা খাওয়ার জন্য পরামর্শ দিয়ে থাকেন। কলায় রয়েছে ক্যালোরি, ফাইবার, উচ্চ পরিমাণ পটাশিয়াম এবং প্রয়োজনীয় ভিটামিন। এছাড়া রয়েছে প্রাকৃতিক চিনি। তাই ওজন বাড়াতে চাইলে নিয়মিত কলা খাওয়া উচিৎ।

দুধ

দুধকে একটি সম্পূর্ণ বা আদর্শ খাবার বলা হয়। দুধ ওজন বৃদ্ধিকারী বা পেশী নির্মাতা হিসাবে কয়েক দশক ধরে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। দুধে প্রোটিন, ফ্যাট, কার্বোহাইড্রেট, সমস্ত পরিচিত ভিটামিন (A, B1, B2, B12, D) রয়েছে। পাশাপাশি এতে অন্যান্য ভিটামিন এবং খনিজ রয়েছে। প্রতিদিন যদি এক গ্লাস করে দুধ খাওয়া হয় তাহলে ওজন বাড়তে আর বেশি দিন সময় লাগবে না।

বারবার খাবার গ্রহণ

বারবার খাবার খেতে হবে। প্রতি ২ ঘণ্টা অন্তর বেশি করে খেতে হবে। দুধ, দই, ফল, ছানা ইত্যাদি খেতে পারেন। এতে আপনার শরীরে পুষ্টির পাশাপাশি ওজনও বৃদ্ধি পাবে। এটি ওজন বৃদ্ধি করার সবচেয়ে সহজ উপায়।

ঘুম

শরীর ঠিক রাখতে ঘুম খুবই প্রয়োজন। প্রতিদিন ৮ ঘণ্টা অবশ্যই ঘুমাতে হবে। এর থেকে কম হওয়া যাবে না। ঘুম বা ভালো ঘুম একটা ওষুধের নাম। ভালো ঘুম মানেই ভালো স্বাস্থ্য। তাই ওজন দ্রুত বৃদ্ধিতে ঠিক মতো ঘুম খুবই উপকারী।

ভাত

বাঙালির তৃপ্তির খাবার হচ্ছে ভাত ও মাছ। ভাত ছাড়া আমাদের এক বেলাও চলে না। ভাতে আছে ফ্যাট, প্রোটিন, ভিটামিন এবং মিনারেল। শুধু তাই নয়, চালের বেশিরভাগ জুড়েই রয়েছে কার্বোহাইড্রেট। ভাত খেলে ওজন বাড়ে এ কথাটা কিন্তু সত্যি। রান্না করা ১ কাপ চালে ১৫৮ গ্রাম ক্যালোরি, ৪৪ গ্রাম কার্বস এবং খুব অল্প পরিমানে ফ্যাট থাকে।

বাদাম

যদি ওজন বৃদ্ধি করতে চান তাহলে প্রতিদিনের খাবারের তালিকা অবশ্যই বাদাম রাখুন। প্রতিদিন ১০০ গ্রাম করে বাদাম খান। ১০০ গ্রাম বাদামে ১৭৩ ক্যালোরি রয়েছে। এছাড়াও ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড, প্রোটিন, ভিটামিন “ই” এবং ফাইবার থাকে।

আলু

আলু এমন একটি সবজি যা প্রায় প্রতিদিনই আমাদের খাদ্যের তালিকায় থাকে। শরীরের ওজন বাড়ানোর জন্য আলু খুবই উপকারী। আলুতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন কার্বোহাইড্রেট বা শর্করা রয়েছে। যদি দ্রুত ওজন বাড়াতে চান তাহলে প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় আলু রাখুন। তরকারিতে কিংবা ভর্তা করে ভাতের সঙ্গে প্রতিদিন আলু খান।

শুকনো ফল

শুকনো (ড্ৰাই ফ্রুটস) ফলে যেমন- কিসমিস, খেজুর ইত্যাদি থাকা প্রাকৃতিক সুগার তাৎক্ষণিক শক্তি জোগাতে সাহায্য করে। শুকনো ফল উচ্চ ক্যালোরি যুক্ত যা অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস এবং মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টস সরবরাহ করে। শুকনো ফলে চিনির পরিমাণ বেশি যা ওজন বাড়ানোর জন্য দুর্দান্ত।

ডার্ক চকলেট

ডার্ক চকোলেট অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অন্যান্য পুষ্টি উপাদান রয়েছে। যা আমাদের ওজন বাড়াতে সহায়তা করে। ডার্ক চকলেট দ্রুত ওজন বাড়ানোর জন্য উচ্চ ক্যালোরি সমৃদ্ধ খাবারগুলোর মধ্যে একটি।

পনির

ওজন বাড়ানোর জন্য পনির বেশ কার্যকরী। পনিরের মধ্যে রয়েছে উচ্চ পরিমাণ চর্বি। এ খাবারটি দুধ দিয়ে তৈরি হওয়ায় এর মধ্যে উচ্চ প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, ফ্যাট এবং কোলেস্টেরল থাকে। যা ওজন বাড়াতে সাহায্য করে।

স্বাস্থ্যকর ফ্যাট এবং তেল

ওজন বাড়ানোর জন্য অবশ্যই উচ্চ প্রোটিন, ক্যালরি, চর্বিযুক্ত খাবারগুলো বেশি খেতে হবে। তেল দিয়ে রান্না করা খাবার ওজন বাড়াতে সহায়তা করে। তাছাড়া সকালে খিচুড়ি, ভাত, লুচি, পরোটা, পনির, রুটিসহ তেল-মসলার খাবার খেলে ওজন বাড়বে। অন্যদিকে পিৎজা, কাবাব, চিকেন ফ্রাই, স্যান্ডইউচ, বার্গার, কেক, পেস্ট্রিও একটু বেশি খেলেই দ্রুত ওজন বেড়ে যাবে।

শুধু যে এই খাবারগুলি ওজন বৃদ্ধিতে সহায়তা করে এমন টা নয়। আপনি যে খাবার খাবেন অবশ্যই পরিমাণে বেশি খাবেন। বিশেষ করে ভাত, কারণ ভাত ওজন বৃদ্ধি করার একমাত্র সহজ উপায়। তাই প্রতিদিন নিয়ম করে একটু বেশি ভাত খাওয়ার চেষ্টা করবেন।

সূত্র: