“চালতা” দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে, রক্তচাপ কমায় ও তারুণ্য ধরে রাখে।

পাকা চালতা শুকনো মরিচ, চিনিলবণ দিয়ে মাখিয়ে নিন চালতা মাখা। চালতার মাখা নাম শুনলেই জিবে পানি এসে যায়। মজাদার চালতা মাখা বা আঁচার আমাদের সবার পছন্দের। স্কুল, কলেজে গিয়ে চালতার আচার কিনে খাওয়া কিংবা বাড়িতে ফেরিওয়ালার কাছ থেকে ভাঙা জিনিস পত্র দিয়ে চালতার আচার খাওয়ার কি যে মজা, এটা কি কখনও ভোলা যায়। চালতা আমরা খাই কিন্তু এর গুণাগুণ সম্পর্কে আমরা কম জানি।

শরীরের বিভিন্ন ধরণের সমস্যার মোকাবিলা করতে চালতার জুরি নেই। ইংরেজিতে Elephant apple এবং বৈজ্ঞানিক নাম Dillenia inda. আয়ুর্বেদে এটি হার্টের রোগীদের জন্য আদর্শ খাদ্য হিসাবে বিবেচিত হয়। এটির মুখের দুর্গন্ধ দূর করে নিঃশ্বাসকে সতেজ করতে সহায়তা করে। আয়ুর্বেদে বিভিন্ন চিকিৎসায় চালতা গাছের ফল, ছাল এবং ফুল ব্যবহৃত হয়। বুনো হাতি চালতা খায়, তাই এটির নামকরণ করা হয়েছে Elephant apple.

চালতা টকজাতীয় ফল হওয়ায় এটি নারীদের কাছে অত্যন্ত বেশ জনপ্রিয়। চালতা দিয়ে আচার, চাটনি অথবা চালতা দিয়ে টক ডাল অনেকের প্রিয় খাবার। চালতার রয়েছে বিশেষ ঔষধি গুণাগুণ। বিশেষজ্ঞদের মতে, চালতা অক্সালিকম, ট্যানিক, ম্যালিক ও সাইট্রিক নামক প্রাকৃতিক এসিডে সমৃদ্ধ। ফলটি ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, আয়রন, ভিটামিন “এ”, ভিটামিন “বি” ও ভিটামিন “সি” এর ভালো উৎস। এছাড়া এতে ফ্ল্যাভোনয়েডস, প্রানথোকায়ানিডিনস এবং ট্রাইটারপেইনয়েডগুলির একটি ভাল উৎস।

চালতা খাওয়ার উপকারীতা:

চালতার স্বাস্থ্য উপকারীতা সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো –

প্রাণচঞ্চল ও শক্তি বৃদ্ধি করে:

ক্যালোরি, ভিটামিন “বি”, প্রোটিন এবং স্বাস্থ্যকর ফ্যাট রয়েছে চালতাতে, যা মস্তিষ্কের ক্রিয়াকলাপের পাশাপাশি শারীরিক এবং যৌন ক্রিয়াকলাপের জন্য বর্ধিত স্ট্যামিনা নিশ্চিত করে। খাদ্য তালিকায় চালতা রাখলে শক্তির স্তরকে উল্লেখযোগ্যভাবে বাড়িয়ে তুলবে।

চোখের স্বাস্থ্যের জন্য ভাল:

চালতা ভিটামিন “এ” এর ভাল উৎস, চোখের দৃষ্টি শক্তি ভালো রাখার জন্য এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি উপাদান। চক্ষু বিশেষজ্ঞরা মনে করে যে, চোখের বেশ কয়েকটি সমস্যা রয়েছে যা আসলে চোখের দৃষ্টিশক্তি হ্রাস করে দিতে পারে। যেহেতু চালতা ভিটামিন “এ” এর একটি ভালো উৎস। সেহেতু এটি চোখের দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে সাহায্য করে।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করে:

আয়ুর্বেদের মতে, চালতা মুখের রুচি বৃদ্ধি করতে এবং মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে সহায়তা করে। কারণে চালতাতে অ্যান্টিমাইক্রোবায়াল রয়েছে। এটি মুখের ভেতরের দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারী ব্যাক্টেরিয়াগুলি ধংস করতে পারে।

কোষ্টকাঠিন্যতা দূর করে:

চালতায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার, যা বদহজম ও কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। এতে থাকা ফাইবার মলের পরিমাণে বৃদ্ধি করে কোষ্ঠকাঠিন্যতা রোধ করতে সহায়তা করে।

উচ্চ রক্তচাপ কমায়:

উচ্চ রক্তচাপ প্রতিরোধে অন্য প্রাকৃতিক খাবারের মতো চালতা অন্যতম বিকল্প হতে পারে। চালতা উচ্চ রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে কারণ এতে পটাশিয়াম রয়েছে।

তারুণ্য ধরে রাখতে:

যারা তারুণ্য ধরে রাখতে চান তাদের জন্য ভিটামিন “সি” অত্যন্ত উপকারী। ভিটামিন “সি” কোলাজেন সংশ্লেষণের জন্য অপরিহার্য। কোলাজেন এক ধরণের প্রোটিন যা ত্বককে দৃঢ় করতে সহায়তা করে। ভিটামিন “সি” হল অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট যা ফ্রি র‌্যাডিকেলগুলির বিরুদ্ধে লড়াই করে ত্বকের বার্ধক্যকে দূরে রাখতে সাহায্য করে। চালতা ভিটামিন “সি” এর দুর্দান্ত উৎস তাই তারুণ্য ধরে রাখতে আমরা চালতা খেতে পারি।

ঠাণ্ডা ও কাশি কমাতে:

চালতা যেহেতু ভিটামিন “সি” সমৃদ্ধ আর আমাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে ভিটামিন “সি” খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই যদি ঠাণ্ডা ও কাশির মতো ইনফেকশনে ভুগে থাকেন তাহলে ভিটামিন “সি” যুক্ত চালতা খেতে পারেন।

সতর্কতা:

আপনি যদি জটিল কোনো রোগে আক্রান্ত হন বা অন্য কোনো কারণে রেগুলার কোনো মেডিকেল কোর্স-এর মধ্য দিয়ে যান তাহলে অবশ্যই খাওয়ার আগে আপনার চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন।

সূত্র: netmeds, healthbenefitstimes

Share