মৌরি মুখের দুর্গন্ধ দূর করে, ক্ষুধা কমায়, কাশি ও কফ দূর করতে খুব কার্যকরী।

যদি প্রশ্ন করা হয় হজম শক্তি বৃদ্ধি করে কোন খাবার গুলি, তাহলে ওঠে আসবে মৌরি। অনেক ভারী খাবার খাওয়ার পরে আমরা অনেকেই পান সুপারী খেয়ে থাকি। কিন্তু পান সুপারী না খেয়ে মৌরিও খেতে পারেন। কারণ এটা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী। মসলা যুক্ত পানের প্রধান উপকরণ হলো মৌরি। মৌরি, সুমিষ্ট ঘ্রান ও দারুন স্বাদের একটি মসলা। এর সুমিষ্ট ঘ্রান ও স্বাদের কারণে পরিচিতিও অনেক। মৌরি গাছ বহু শতাব্দী ধরে ঔষধি গাছ হিসাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। মৌরি বীজ শুকিয়ে তারপর গুড়ি করে নিয়ে চা তৈরি করে খেতে পারেন।

দেখতে জিরার মতো কিন্তু জিরার থেকে একটু বড় ও উজ্জ্বল রঙের। ইংরেজীতে Fennel seeds বৈজ্ঞানিক নাম Foeniculum vulgare. সারা পৃথিবীতেই মৌরির চাষ হয়। সমগ্র বিশ্বের মোট উৎপাদনের ৬০% হয় ভারতবর্ষে। মৌরিতে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল প্রভাব রয়েছে। এছাড়া ম্যাগনেসিয়াম, ফাইবার (খাদ্য আঁশ) পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, আয়রন রয়েছে। মৌরিতে ক্যালোরির পরিমাণ খুব কম। তবে অনেক গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি উপাদান রয়েছে।

শুকনা মৌরির তুলনায় কাঁচা মৌরি খেতে বেশি সুস্বাদু, ঘ্রাণও বেশি থাকে। পাঁচ ফোঁড়ন যেটা আমরা স্বাদ ও ঘ্রাণের জন্য চাটনিতে, বিভিন্ন শাকে ও তরকারীতে দিয়ে রান্না করে থাকি যেটা ছাড়া যেকোন আচার ঠিক জমে না। সেই পাঁচ ফোড়ন মূলত পাঁচটি মসলার মিশ্রণ। এই পাঁচটি মসলার একটি হলো মৌরি। মৌরি মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে, সেলুলার সুরক্ষা, হাড়ের বিকাশ, দৃষ্টিশক্তিকে শক্তিশালী করতে, হরমোনগুলি নিয়ন্ত্রণ করতে, রক্তে শর্করার নিয়ন্ত্রণে এবং ক্ষত নিরাময়ে, কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে, বুকের দুধ খাওয়ানো মায়েদের বুকের দুধ বৃদ্ধিতে কার্যকরী।

মৌরির পুষ্টি গুন

  • ক্যালরি: ২০
  • ফাইবার :২ গ্রাম
  • ভিটামিন: সি ১%
  • ক্যালসিয়াম: ৫%
  • আয়রন: ৬%
  • ম্যাগনেসিয়াম: ৫%
  • পটাসিয়াম: ২%
  • ম্যাঙ্গানিজ: ১৭%

মৌরির উপকারীতা

স্বাস্থ্যগত দিক থেকে মৌরি অনেক উপকারী। নিচে মৌরির উপকারীতা আলোচনা করা হলো –

মৌরি ক্ষুধা কমায়:

মৌরি শুধু রান্নায় ঘ্রাণ ও স্বাদ যোগ করে না এটি ক্ষুধা কমাতেও সহায়তা করে। ৯ জন স্বাস্থ্যবান মহিলার গবেষণায় প্রমাণিত হয়েছে যে, দুপুরের খাবার খাওয়ার আগে যারা ২ গ্রাম মৌরি খেয়েছিলেন তাদের খাওয়ার সময় ক্ষুধা কম ছিল এবং খাবারের সময় কম ক্যালোরি গ্রহণ করেছিল। ফলে যারা ওজন কমাতে চান তাদের জন্য মৌরি একটি ভালো উপায় হতে পারে।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে:

অনেকেরই এ সমস্যা আছে। তাদের জন্য মৌরি খুবই কার্যকর। মৌরি মাউথ ফ্রেশনার হিসেবে কাজ করে। নিয়মিত মৌরি খেলে আপনার নিঃশ্বাসের দুর্গন্ধ দূর হবে। এক্ষেত্রে সবসময় মৌরি সাথে রাখা যেতে পারে।

হার্টের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো:

বিভিন্ন কারণে হার্টের জন্য উপকারী মৌরি। কারণ এতে প্রচুর ফাইবার রয়েছে। ফাইবার উচ্চ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে হার্টের রোগের ঝুঁকি হ্রাস করতে পারে। ২২ টি গবেষণার একটি পর্যালোচনা দেখা গেছে যে, প্রতিদিন অতিরিক্ত ৭ গ্রাম ফাইবার খেলে হার্টের রোগের ঝুঁকি ৯% কমে যায়। এছাড়া মৌরিতে ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম এবং ক্যালসিয়াম থাকে যা হার্টকে সুস্থ্য রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

ক্যান্সারে বিরুদ্ধে লড়াই করে:

মৌরিতে থাকা শক্তিশালী উদ্ভিদ যৌগ নির্দিষ্ট ক্যান্সার সহ দীর্ঘস্থায়ী রোগ থেকে রক্ষা করতে পারে। অ্যানিথল – মৌরি বীজের অন্যতম প্রধান সক্রিয় যৌগ। যার মধ্যে ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই করার মতো বৈশিষ্ট্য রয়েছে। একটি টেস্ট-টিউব সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে, মৌরি স্তনের ক্যান্সারের কোষের বৃদ্ধি কমাতে পারে।

বাচ্চাকে বুকের দুধ খাওয়ানো মায়েদের জন্য ভালো:

মৌরিতে গ্যালাক্টোজেনিক বৈশিষ্ট্য দেখা গেছে, এর অর্থ এটি বুকের দুধ বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। মৌরি প্রোল্যাকটিনের রক্তের মাত্রা বাড়িয়ে তুলতে পারে – এটি এমন একটি হরমোন যা শরীরকে বুকের দুধ তৈরি করতে সংকেত দেয়। এজন্য বাচ্চাকে বুকের দুধ খাওয়ানো মায়েদের জন্য মৌরি কার্যকরী।

কাশি ও কফ দূর করতে:

ইতালির গবেষকরা জানিয়েছেন, মৌরিবীজ বা মৌরি তেল ফুসফুসে শ্লেষ্মা কমিয়ে কাশি থেকে মুক্তি দিতে পারে। নাকে এবং গলায় অত্যধিক শ্লেষ্মা বা কফ জমার সমস্যা প্রতিরোধ করতে পারে।

মাসিকের ব্যথা দূর করে:

মাসিকের ব্যথা, এটা মেয়েদের একটি কমন সমস্যা। সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে মৌরি মাসিকের ব্যথা হ্রাস করতে পারে।

হজমের জন্য ভালো:

গ্যাস্ট্রিক বা ডায়রিয়ার সমস্যায় মৌরি চা বা মৌরি খেতে পারেন। মৌরি হজমজনিত সমস্যাগুলি দূর করতে সহায়তা করে। মৌরিতে হজম শক্তি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। গ্যাসের সমস্যায়ও দারুন উপকারী। এক গ্লাস পানিতে সারা রাত মৌরি ভিজিয়ে রেখে সেই পানি খেলে পেট ফাঁপা ও গ্যাসের কারণে হওয়া পেট ব্যাথা কমে।

দাঁতের জন্য ও অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে:

দাঁতের ব্যাকটেরিয়া দ্বারা তৈরি প্লেক প্রতিরোধ করতে পারে মৌরি। গবেষণার সিদ্ধান্ত হল মৌরি একটি চমৎকার ভেষজ যা, দাঁতে গর্ত হওয়া এবং মুখের ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি ও ছড়িয়ে পড়া প্রতিরোধ করতে পারে। এতে অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে। গবেষণায় দেখা যায় যে মৌরির নির্যাস ক্ষতিকারক ব্যাকটিরিয়ার বৃদ্ধি বাধা দিতে পারে।

কোষ্ঠকাঠিন্যতা দূর হয়:

মৌরি হজম পেশীগুলি শিথিল করে কোষ্ঠকাঠিন্যতা দূর করতে পারে। পেটের সমস্যা ও কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধে করতে মৌরি খুব কার্যকর।

সতর্কতা:

গর্ভবতী মহিলাদের জন্য মৌরি এতটা ভালো নয়। গর্ভবতী মহিলারা এক্ষেত্রে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে পারেন। এছাড়া আপনি যদি জটিল কোনো রোগে আক্রান্ত হন বা অন্য কোনো কারণে রেগুলার কোনো মেডিকেল কোর্স-এর মধ্য দিয়ে যান তাহলে অবশ্যই খাওয়ার আগে আপনার চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন।

Share