ডায়াবেটিস রোগীরা কি কিসমিস খেতে পারেন?

কিসমিস ছোট-বড়ো সবাই কম-বেশি পছন্দ করে। কিসমিস বাচ্চারাও খেতে খুব ভালোবাসে। যেকোন মিষ্টি খাবারের স্বাদ এবং সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য কিসমিস ব্যবহার করা হলেও এটি আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারি ।

পোলাও, কোরমা, বিরিয়ানি এমনকি বিভিন্ন ফাস্ট ফুডেও কিসমিস ব্যবহার করা হয়। আর পায়েসতো কিসমিস ছাড়া যেন ঠিক জমে না। হার্টকে ভাল রাখে এবং খারাপ কোলেস্টরল দূর করতে সাহায্য করে। এছাড়া রয়েছে আয়রন যা রক্তাল্পতা দূর করতে সাহায্য করে।

এতো সুস্বাদু ও স্বাস্থ্য উপকারিতা থাকার পরও এটা কি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য খারাপ হতে পারে। এটা নিয়ে অনেকের মধ্যে মতৈক্য রয়েছে। তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক এটা ডায়াবেটিস রোগীদের খাওয়া যাবে কি না।

ডায়াবেটিস হলে আমি কি কিসমিস খেতে পারি?

হ্যাঁ পারি। অবশ্যই, এর অর্থ এই নয় যে আপনি যখনই চান তখনই কিসমিসের পুরো বাক্স নিয়ে খেতে পারেন। পরিমান মত খেতে হবে। কিসমিসে প্রাকৃতিক চিনি রয়েছে। যদিও কিসমিস স্বাস্থ্যকর, তবে এতে কার্বোহাইড্রেট রয়েছে। ২ টেবিল চামচ কিশমিশে প্রায় ১৫ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট থাকে।

কিসমিস কি স্বাস্থ্যের জন্য ভালো?

অন্যান্য ফলের মতো, কিসমিসে ক্যালোরির পরিমান কম থাকে এবং উচ্চ পুষ্টি উপাদান থাকে। ১/৪ কাপ কিসমিসে প্রায় ১২০ ক্যালোরি থাকে। এছাড়া ২ গ্রাম ডায়েটারি ফাইবার, ২৫ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম এবং ২৯৮ মিলিগ্রাম পটাসিয়াম রয়েছে।

ফাইবার আমাদের দীর্ঘ সময় ধরে পেট ভরিয়ে রাখতে সহায়তা করে এবং হজম স্বাস্থ্য উন্নত করে। ক্যালসিয়াম শক্তিশালী হাড় গঠনে সহায়তা করে। পটাসিয়াম আমাদের স্নায়ুতন্ত্র এবং পেশী শক্তিশালী করে। এছাড়াও পটাসিয়াম পানির ভারসাম্য ঠিক রাখতে সহায়তা করে। এজন্য কিসমিস আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারি।

কিসমিস কি রক্তে শর্করাকে নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে?

কিসমিস খাওয়ার অভ্যাস রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ান্ত্রনে সহায়তা করে। ১০ জন অংশগ্রহণকারীর ২ থেকে ৪-সপ্তাহের এক গবেষণায় দেখা গেছে যে, কিসমিস খাবার খাওয়ার পরে রক্তে গ্লুকোজ এবং ইনসুলিনের প্রতিক্রিয়া উল্লেখযোগ্যভাবে কম ছিল।

একই গবেষণায় সাদা রুটি খাওয়ার ফলে রক্তে গ্লুকোজ এবং ইনসুলিনের প্রতিক্রিয়া তুলনামূলক বেশি ছিল।

গ্লাইসেমিক সূচক কী?

০-১০০ স্কেলে কোনো খাবারের গ্লাইসেমিক ইনডেক্স (GI)-এর মান ৫৫-এর কম হলে তা ডায়াবেটিস রোগীদের খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। কারণ, ৫৫ এর চেয়ে কম গ্লাইসেমিক ইনডেক্স (GI)মানযুক্ত খাবারগুলি ধীরে ধীরে হজম হয় যা রক্তে শর্করার মাত্রা কমিয়ে দেয়।

আমের গ্লাইসেমিক ইনডেক্স (GI) ৪৯ তাই কোনও কারণেই এটা বলা যায় না যে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগীরা কিসমিস খেতে পারবে না। তবে পরিমিত পরিমাণে খেতে হবে।

সূত্র: healthline

Share