কাজু বাদাম ওজন কমাতে, হার্ট ভালো রাখতে ও ডায়াবেটিসে উপকারী।

কাজু বাদাম দেখতে কিডনি আকৃতির রং সাদা। খেতে খুবই সুস্বাদু। কাজু বাদামে প্রায় রান্না করা মাংসের সমপরিমাণ প্রোটিন থাকে। কাজু বাদাম অনেক সময় দুধের বিকল্প হিসাবে ব্যবহৃত হয়। যেমন কাজু বাদাম থেকে দুধ, পনির ইত্যাদি তৈরি করা হয়।

ইংরেজিতে: Cashew nut এবং বৈজ্ঞানিক নাম: Anacardium occidentale. ১৪৯৮ সালে ভাস্কো দা গামার হাত ধরে উপমহাদেশে আগমন ঘটে কাজু বাদামের। তারপর চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে এর স্বাদের সুখ্যাতি। এখন তো দক্ষিণ আমেরিকা এবং আফ্রিকা মহাদেশের একাধিক দেশে এই বাদামটি চাষ করা হয়।

কাজুতে উল্লেখযোগ্য পরিমাণে কপার, ফসফরাস, ম্যাঙ্গানিজ, ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে। ম্যাগনেসিয়াম এবং ম্যাঙ্গানিজের এক দুর্দান্ত উৎস কাজু বাদাম যা, হাড়ের স্বাস্থ্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া এই বাদামটি ওজন কমাতে সাহায্য করে, ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ও হার্টের জন্য ভালো।

কাজু বাদামের পুষ্টি উপাদান

কাজু বাদাম প্রচুর পুষ্টি উপাদানে সমৃদ্ধ। নিচে এর কয়েকটি পুষ্টি উপাদান দেওয়া হলো –

  • ক্যালোরি: ১৫৭
  • প্রোটিন: ৫ গ্রাম
  • ফ্যাট: ১২ গ্রাম
  • কার্বস: ৯ গ্রাম
  • ফাইবার: ১ গ্রাম
  • কপার: ৬৭% (DV)
  • ম্যাগনেসিয়াম: ২০% (DV)
  • ভিটামিন “কে”: ৮% (DV)

কাজু বাদামের উপকারিতা

কাজু বাদামের উপকারিতা সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো –

টাইপ-2 ডায়াবেটিসে উপকারি:

টাইপ-2 ডায়াবেটিসযুক্ত ব্যক্তিরা তাদের ডায়েটে কাজু বাদাম রাখলে উপকার পাবে। কারণ কাজু বাদামে থাকা ফাইবার রক্তে শর্করার স্পাইক প্রতিরোধে সহায়তা করে। কাজু বাদামে সুগারের পরিমাণ কম এবং ফাইবার সমৃদ্ধ। এদুটি একত্রিত হয়ে রক্তে শর্করার মাত্রা হ্রাস করতে এবং টাইপ-2 ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে পারে।

ওজন কমাতে সহায়তা করে:

বাদামে প্রচুর পরিমাণে ক্যালোরি এবং ফ্যাট থাকে। যা সাধারণভাবে ওজন বৃদ্ধি করতে পারে। প্রতি ২৮-গ্রাম কাজু বাদামে ১৫৭ ক্যালোরি থাকে। তবে সাম্প্রতিক গবেষণা থেকে জানা গেছে যে, মানব দেহ এই ক্যালোরির প্রায় ৮৮% হজম করতে এবং শুষে নিতে পারে।

তাই যারা ওজন কমাতে ইচ্ছুক সেসব লোকেদের ডায়েটে পরিমাণ মতো কাজু বাদাম পরামর্শ দেওয়া হয়। এটি প্রোটিন এবং ফাইবার সমৃদ্ধ, যা ক্ষুধা কমাতে এবং পেট ভরিয়ে রাখতে সাহায্য করে। ফলে ওজন হ্রাস পায়।

হার্টের জন্য ভালো:

কাজু বাদাম সমৃদ্ধ ডায়েট স্ট্রোক এবং হার্ট ডিজিজের মতো রোগের ঝুঁকি কমাতে পারে। দেখা গেছে যে, টাইপ-2 ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিরা যারা প্রতিদিন কাজু বাদাম থেকে ১০% ক্যালোরি গ্রহণ করেছিলেন তাদের মধ্যে LDL (খারাপ) কোলেস্টেরলের মাত্রা হ্রাস পেয়েছিল এবং ব্লাড প্রেসার স্বাভাবিক ছিল।

এছাড়া সাম্প্রতিক একটি পর্যালোচনা দেখা যায় যে, নিয়মিত কাজু বাদাম খেলে রক্তচাপ এবং ট্রাইগ্লিসারাইডের মাত্রা কমিয়ে দিতে পারে। যা হার্টের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো।

হাড়ের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো:

কপার সমৃদ্ধ খাদ্য তালিকার মধ্যে কাজু বাদাম অন্যতম। ২৮ গ্রাম কাজু বাদামে ৬৭% কপার থাকে। আমাদের দেহে কপারের অভাব অস্টিওপোরোসিসের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়। তাই কপারের চাহিদা পূরণ করতে আমরা কাজু বাদাম খেতে পারি। এছাড়া কাজুতে থাকা ম্যাগনেসিয়াম হাড় গঠনের জন্যও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

সতর্কতাঃ

আপনি যদি জটিল কোনো রোগে আক্রান্ত হন বা অন্য কোনো কারণে রেগুলার কোনো মেডিকেল কোর্স-এর মধ্য দিয়ে যান তাহলে কাজু বাদাম খাওয়ার আগে অবশ্যই আপনার চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন।

উৎস: হেলথলাইন, medicalnewstoday

Share