ত্বকের যত্নে ব্যবহার করুন বরফ।

ত্বকের যেকোনো প্রকার সমস্যা দূর করতে বরফ ম্যাজিকের মত কাজ করে। বিশেষ করে গরমের দিনে বরফ হতে পারে আপনার পরম বন্ধু। কেননা একদিকে যেমন অসহনীয় গরম অন্যদিকে ধূলাবালি। এসব থেকে পরিত্রানের জন্য বরফের বিকল্প আর কিছু নেই। ত্বকে বরফ ব্যবহারে অনেক উপকার পাওয়া যায়। বরফ ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায়, বাড়তি তেল শুষে নেয়, ব্রণ কমায় এবং উন্মুক্ত লোমকূপের সমস্যাও দূর করে। এছাড়া ত্বক সতেজ রাখার পাশাপাশি এটি চোখের চারপাশের ফোলাভাব কমায়। নিয়মিত মুখে বরফ ঘষলে চুলকানিসহ ত্বকের অন্যান্য সংক্রমণজাতীয় সমস্যাও দূর হয়।

আসুন এবার জেনে নিই, ত্বককে ভালো রাখতে বরফের কিছু কার্যকারিতা সম্পর্কে-

ত্বকের তৈলাক্ততা দূর করে:

লেবু ত্বকের অতিরিক্ত দাগ কমাতে ও অতিরিক্ত তেল পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। আধা কাপ লেবুর রস ও সমপরিমাণ পানি মিশিয়ে বরফ তৈরি করুন। তারপর এটি আপনার ত্বকে লাগান। এটি ব্যবহারের মাধ্যমে ত্বকের লোমকূপ সংকুচিত হয় এবং ত্বকে জমে থাকা অতিরিক্ত তেল পরিষ্কার হয়ে যায়।

চোখের নিচের ফোলাভাব দূর করে:

প্রাণবন্ত ত্বকের জন্য গ্রিনটি দিয়ে তৈরি বরফ খুবই কার্যকরী। গ্রিনটিতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট চোখের নিচের ফোলাভাব কমায় এবং তাৎক্ষণিকভাবে ত্বক প্রাণবন্ত করে। দুই তিনটা টিব্যাগ এক কাপ পানিতে দিয়ে পাঁচ মিনিট ধরে ফুটান। ঠাণ্ডা হলে বরফে পরিণত করুন। প্রাণবন্তভাব আনতে মুখের ত্বকে এই বরফ ঘষুন। অথবা রাতে ঘুমানোর আগে চোখের চারপাশে বরফ ঘষুন। এতে চোখের ফোলাভাব কমে যাবে এবং কুঁচকানো ভাবও দূর হবে। ব্রণের দাগ অথবা ছোপ ছোপ দাগ দূর করতে নিয়মিত মুখে বরফ ঘষুন। এতে ত্বক হবে উজ্জ্বল ও দাগহীন।

ত্বকে যেকোনো প্রকার দাগ কমায়:

ত্বকের যেকোনো প্রকার দাগ কমাতে বরফ খুবই কার্যকরী। সেক্ষেত্রে, শসা পেস্ট করে বরফ বাক্সে অর্ধেক পানি ও বাকি অর্ধেক শসা পেস্ট দিয়ে পূর্ণ করুন। তারপর ফ্রিজে রেখে বরফ তৈরি করে ত্বকে ব্যবহার করুন। এভাবে কিছুদিন করলে ত্বকের দাগ কমে যাবে।

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়:

সম পরিমাণ কাঁচা দুধ এবং লেবুর রস একসাথে মিশিয়ে নিন। এবার এটি আইস ট্রেতে ঢেলে দুই ঘণ্টা ফ্রিজে রাখুন। বরফ হয়ে গেল ত্বকে ব্যবহার করুন। দুধে থাকা ল্যাকটিক অ্যাসিড ত্বকের কোলাজেন বৃদ্ধি করে বলিরেখা দূর করে। আর লেবুর রস দ্রুত ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

রোদে পোড়া দাগ দূর করে:

আধা কাপ অ্যালোভেরা জেল আইস ট্রেতে ঢেলে দিন। এটি ফ্রিজে ২ ঘণ্টা রাখুন। এরপর এটি মুখ এবং ঘাড়ে ১৫ মিনিট ম্যাসাজ করে লাগান। অ্যালোভেরা জেলের অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি ইনফ্লামেটরী উপাদান রোদে পোড়া দাগ ও ত্বকের জ্বালা পোড়া দূর করতে সাহায্য করবে।

ব্রণ দূর করে:

ব্রণ দূর করতে নিম পাতা, হলুদ ও বরফ খুবই কার্যকরী একটি উপাদান। দুই টেবিল চামচ নিম পাতা গুঁড়ো আধা কাপ পানিতে মিশিয়ে নিন। এরপর এর সাথে এক চিমটি হলুদের গুঁড়ো দিয়ে দিন। এটি বরফের ট্রেতে ঢালুন। তারপর ফ্রিজে ২-৩ ঘন্টা রেখে দিন। নিম পাতা এবং হলুদের পানি দিয়ে তৈরি বরফের টুকরোটি ব্রণ দূর করতে বেশ কার্যকর।

মেকআপ ঠিক রাখে:

মেকআপ করার আগে এক টুকরা বরফ মুখে ঘষে নিন। কারণ এটি মেকআপ ঠিক রাখতে সাহায্য করে। এতে করে মেকআপ করার পরও ত্বক থাকবে সতেজ। আর সহজে মুখ ঘামাবেও না। আর এতে মেকআপ নষ্ট হওয়ার কোনো আশঙ্কা থাকবে না।

টোনার হিসেবে:

বরফ খুব ভালো পরিষ্কারক ও টোনার হিসেবে কাজ করে। সেক্ষেত্রে, মুখে ভালো করে বরফ লাগিয়ে ২০ মিনিট পরে ধুয়ে ফেলুন। দিনে অন্তত দুবার এটি ব্যবহার করুন। এছাড়া যারা শুষ্ক ত্বকের অধিকারী তারা দুটি কাঠ বাদাম বেটে পেস্ট তৈরি করে ত্বকে লাগাতে পারেন ভালো ফল পাবেন।

তাই নিয়মিত বরফ ব্যবহার করুন আর ত্বককে রাখুন সুন্দর স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ও প্রাণবন্ত।

Share