সকালে ঘুম থেকে ওঠার স্বাস্থ্য উপকারীতা।

ছোটবেলায় আমরা সকলে একটা কবিতা পড়েছি, যে আমি হব সকাল বেলার পাখি সবার আগে কুসুম বাগে উঠব আমি ডাকি। কিন্তু সভ্যতার ক্রমবিকাশ এর ফলে টেলিভিশন, ইন্টারনেট, ফেসবুক, ইউটিউব এর জামানায় আমরা সকলে এখন রাতের পেঁচা হয়ে গেছি। এখন আমাদের অনেকেরই রাত ১২টা, ১টা না বাজলে ঘুমের সময় হয়না যে কারণে আমরা অনেকেই মানসিক ও শারীরিকভাবে সুস্থ সতেজ ও কর্মদীপ্ত নই।

স্নিগ্ধ প্রাকৃতি মনকে উৎফুল্ল করবে:

সকালে ঘুম থেকে উঠলে প্রথমেই আপনি যেটি অবলোকন করতে পারবেন সেটি হলো প্রাকৃতিক স্নিগ্ধ সুন্দর নির্মল পরিবেশ পাখির কলকাকলি ও সূর্যোদয়। যেটি আপনার শরীর ও মনকে উৎফুল্ল করে মানসিক শান্তি দিবে এবং আপনার দিনটি সুন্দর ভাবে শুরুর জন্য খুবই সহায়ক হবে।

সময়ের কাজ সময়মতো করতে পারা:

আপনি যদি সকালে ঘুম থেকে ওঠেন তাহলে দেখবেন আপনি কর্মক্ষেত্রে সঠিক সময়ে পৌঁছাতে পারছেন। বাসা থেকে বের হবার সময় ও রাস্তায় আপনাকে তাড়াহুড়া করতে হচ্ছে না। আপনি সকালে অফিসে যাওয়ার প্রস্তুতি নিতে অধিক সময় পাচ্ছেন, যার ফলে আপনি মানসিকভাবে চাপমুক্ত থাকতে পারছেন যা আপনার দিনটি ইতিবাচকভাবে শুরু করার জন্য খুবই সহায়ক।

মন ভালো থাকবে এবং মস্তিষ্ক স্থির থাকবে:

আপনি যদি সকালে ঘুম থেকে উঠতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই একটু তাড়াতাড়ি ঘুমাতে হবে। আর আপনি রাতে কতটা সময় ঘুমাবেন এটি আপনার সারাদিনের পরিশ্রমের উপর নির্ভর করে। আপনি যদি আপনার ঘুমাতে যাওয়া ও ঘুম থেকে ওঠা এটিকে একটি রুটিনের মধ্যে আনতে পারেন তাহলে দেখবেন যে আপনার রাতে ঘুম খুব ভালোভাবে হচ্ছে, যার ফলে আপনার শরীর ও মন ভালো থাকবে এবং মস্তিষ্ক স্থির থাকবে যার কারণে আপনি মন দিয়ে কাজ করতে পারবেন।

সতেজ অনুভব:

আপনি যদি সকালে ঘুম থেকে ওঠেন সারাদিন সতেজ অনুভব করবেন কাজেকর্মে চাঙ্গাভাব অনুভব করবেন। যদিও শুরুর দিকে আপনার দিনের বেলায় ঘুম ঘুম অনুভব হতে পারে। তবে কয়েকদিন পরে যখন অভ্যাস হয়ে যাবে তখন সকালে ঘুম থেকে উঠে সারাদিন খুব সুন্দর ও সতেজ ভাবে উপভোগ করতে পারবেন।

বিশুদ্ধ অক্সিজেন গ্রহণ:

আপনি যদি প্রতিদিন একটু ব্যায়াম না করেন তাহলে বুঝবেন যে আপনার দেহে আস্তে আস্তে রোগ বাসা বাঁধবে, এবং ছোট খাটো অসুখ আপনার লেগেই থাকবে, এবং তা ভবিষ্যতে খারাপ পর্যায়ে যেতে পারে। তাই আমাদের শরীরে যেমন খাওয়া জরুরি তেমনি নিয়ম মেনে সকালে বা সন্ধ্যায় ব্যায়াম করা ও জরুরি। তবে সকালের ব্যায়াম আমাদের শরীরের জন্য খুবই উপযোগী কারণ সকালে বাতাসে বিশুদ্ধ অক্সিজেন বেশি পাওয়া যায়। আপনি যদি সকালে ঘুম থেকে উঠে পার্কে বা খোলা মাঠে হাঁটেন একটু দৌড়ান এবং সাথে একটু শারীরিক ব্যায়াম করেন তাহলে দেখবেন যে আপনি অনেক রোগ-ব্যাধির হাত থেকে মুক্ত আছেন।

আপনি যদি লেখা পড়া করেন তাহলে সকালে ঘুম থেকে উঠলে দেখবেন পড়া খুব সহজেই বুঝতে পারছেন। সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর আমাদের ব্রেন শান্ত ও সতেজ থাকে তাই এই সময়ে পড়াশোনা বা অন্য কোন ক্রিয়েটিভ কাজ করতে পারেন, দেখবেন সেটি খুব সুন্দর ভাবে সম্পন্ন হচ্ছে যেটি আপনার প্রতিভা বিকাশে খুবই সহায়ক হবে।

Share