ভেবে দেখ মন কেউ কারো নয়, মিছে ভ্রম ভূমন্ডলে। বদ্ধ হয়ে মায়া জালে।

এই গানটির বা লাইন দুটির মানে বুঝতে পারলে মনুষ্য জীবন, সমাজকে বুঝতে পারা যায়। মাত্র কয়েক দিনের জন্য ভবে বা এই পৃথিবীতে পাল্লাপাল্লি, ঝগড়া-বিবাদ হিংসা, হানাহানি, কাটাকাটি কিসের জন্য। আমার আমার করে কি লাভ?

এত সুন্দর পৃথিবীতে আজও রামপ্রসাদ অদ্বিতীয়। এ গান নয়। এ ঈশ্বরের পাঠানো মহৌষধি। সর্বরোগ হরন করে এ অমৃত। সত্যি এই গানের মধ্য দিয়ে তাকে অনুভব করা যায়, রামপ্রসাদ এত সাধনা করে এই মহাঔষধ রেখে গেছেন। 

শ্যামা-সঙ্গীত শুনলে মন জুড়িয়ে যায়।  আপনি যে সময় শুনুন কেনো আপনার মনটাকে শান্ত করে দিবে, আপনি জীবনটাকে উপলদ্ধি করতে পারবেন। 

যার জন্য মরো ভেবে সেকি তোমার সঙ্গে যাবে:

আমরা বলি দুর্লভ মানব জীবন। কিন্তু অসাধারণ এই জীবনের সত্যি এটাই। নিজের ছেলে মেয়ে, বউ-এর জন্য জীবন পর্যন্ত দিয়ে দেন অনেকে। মায়াময় এই পৃথিবীতে আমরা সকলে মায়ার জালে আটকা পড়ি।

মরে গেলে আমি আর আমি থাকি না। আমি হয়ে যাই লাশ। আমার নাম ধরে কেউ আর ডাকবে না। যাদের জন্য এতো কিছু করলাম, এতো টাকা, পয়সা, ঘর-বাড়ি, সম্পদ রেখে গেলাম তারা আমার কথা আর না ভেবে এইগুলো ভাগবাটোয়ারা বা কে কোনটা নিবে তাই নিয়ে ভাববে।

সেই প্রেয়সী দিবে ছড়া অমঙ্গল হবে বলে:

মানুষ মারা গেলে শুরু হয়ে যাই বিভিন্ন নিয়ম-কানুন পালনের। এটা করো, সেটা করো। এক কাপড়ে থাকো। নিরামিষ খাও। পঞ্জিকা দেখো। মরার পরে দোষ পাওয়া গেছে ১ সের।  দোষ কাটাতে এটা পালন করো। ওটা করো। মরার পরে মৃত ব্যাক্তি মনে হচ্ছে আমাদের শত্রূ হয়ে গেছে।

নিজের সবথেকে কাছের প্রিয়তমা বা স্ত্রী লাশের কাছে থাকতে পারবে না। অমঙ্গল কাটাতে গোবরের ছড়া দিবে বা আরো কত নিয়ম পালন করবে।

দিন দুই-তিনের জন্য ভবে, কর্তা বলে সবাই মানে:

দুই-তিন দিনের জন্য ভবে কর্তা বা শাসনকর্তা হয়ে শোষণ-নিপীড়ণ করে লাভ নেই। আমার থেকে বড় কর্তা এসে আমাকে ফেলে দিবে বা আমার জায়গা দখল করে নিবে। ক্ষমতা বা কতৃত্ব যেমন চিরদিন থাকে না তেমনি সর্বোপরি আমাদের  থেকে বড় কর্তা উপরে বসে আছে।