করোনাভাইরাস ও নিউমোনিয়ার সম্পর্ক কি?

একটি শক্তিশালী রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধের ক্ষেত্রে খুব গুরুত্বপূর্ণ। দুর্বল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তথা দুর্বল ফুসফুস (Lungs) সম্পন্ন ব্যক্তি করোনাভাইরাসে (কভিড-১৯) আক্রান্ত হলে তার মৃত্যুঝুঁকি অনেক বেশি।

সাধারণত যারা করোনাভাইরাসে আক্ৰান্ত হয় তাদের কাশি, জ্বর এবং শ্বাসকষ্টের মতো হালকা বা মাঝারি উপসর্গ থাকে। তবে যারা করোনাভাইরাসের কারণে নিউমোনিয়ায় আক্ৰান্ত হয় তাদের ফুসফুসে তীব্র শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়। করোনাভাইরাসে নিউমোনিয়া একটি মারাত্মক রোগ যা মৃত্যুর কারণ হতে পারে।

নিউমোনিয়া কী?

নিউমোনিয়া হল একটি ফুসফুসের সংক্রমণ যা ফুসফুসের অভ্যন্তরের ক্ষুদ্র শ্বাসনালীতে ব্যথা সৃষ্টি করে। শ্বাসনালীতে এত বেশি তরল জমে যায় যে নিঃশ্বাস নিতে কষ্ট হয়। নিউমোনিয়াতে শ্বাসকষ্ট, কাশি, জ্বর, বুকে ব্যথা, ঠান্ডা লাগা বা ক্লান্তি ইত্যাদি লক্ষণ দেখা দেয়।

করোনাভাইরাসে নিউমোনিয়া:

করোনাভাইরাস সংক্রমণের জটিলতা হিসাবে নিউমোনিয়া হতে পারে। তবে ঠান্ডা লাগা থেকে হতে পারে বা ব্যাকটিরিয়া, ছত্রাক এবং অন্যান্য অণুজীবগুলির সংক্রমণে হতে পারে।

করোনাভাইরাসে নিউমোনিয়া (ফুসফুসের সংক্রমণ) দেখা দিলে ডাক্তার বিভিন্ন পরামর্শ দিতে পারে। অত্যন্ত গুরুতর ক্ষেত্রে, আপনাকে ভেন্টিলেটর নামক একটি মেশিন দিয়ে শ্বাস নেওয়ার জন্য হাসপাতালে যেতে হতে পারে।

করোনাভাইরাসে নিউমোনিয়ার লক্ষণ:

জ্বর, শুকনো কাশি এবং ক্লান্তি করোনাভাইরাসে এর প্রাথমিক লক্ষণ। বমি বমি ভাব, ডায়রিয়া, পেশী ব্যথা এবং বমিও হতে পারে। যদি করোনাভাইরাসের সংক্রমণে নিউমোনিয়া হতে শুরু করে তবে নিচের জিনিসগুলি লক্ষ্য করতে পারেন:

  • দ্রুত হৃদস্পন্দন
  • শ্বাসকষ্ট
  • দ্রুত শ্বাস – প্রশ্বাস
  • মাথা ঘোরা
  • ভারী ঘাম

কাদের করোনাভাইরাসে নিউমোনিয়া হতে পারে?

করোনাভাইরাসে আক্ৰান্ত রোগীদের বেশিরভাগই সুস্থ্য হওয়ার অনুপাত বেশি। তবে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত ১৫% রোগীর অবস্থা খারাপ হতে পারে। তার মানে তাদের কোনও হাসপাতালে অক্সিজেন দিয়ে চিকিৎসা করার প্রয়োজন হতে পারে। প্রায় ৫% রোগীর গুরুতর সংক্রমণ হয় এবং তাদের ভেন্টিলেটর প্রয়োজন হয়।

করোনাভাইরাস ফুসফুসে কিভাবে ক্ষতি করে?

করোনাভাইরাসের কারণে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের তীব্র শ্বাসযন্ত্রের সঙ্কট নামক একটি অবস্থা হতে পারে। এটি এমন একটি রোগ যা দ্রুত ঘটে এবং শ্বাসকষ্টের কারণ হয়।

সাধারণত করোনভাইরাস ফুসফুসে তীব্র ব্যথা সৃষ্টি করে। কারণ, এটি ফুসফুসে শ্বাসনালীর মধ্যে থাকা কোষ এবং টিস্যুকে ক্ষতি করে। এই শ্বাসনালী হলো এমন জায়গা যেখানে আমাদের নিঃশ্বাসের সাথে নেওয়া অক্সিজেনকে প্রসেস করা হয়। এই প্রসেসকৃত অক্সিজেন পরে রক্তে সরবরাহ করা হয়।

ফুসফুসে শ্বাসনালীর মধ্যে থাকা কোষ এবং টিস্যুর ক্ষতির ফলে শ্বাসনালীগুলি আটকে যায়। শ্বাসনালীগুলি আটকে যাওয়ার বা জমাট বাঁধার কারণে তীব্র শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়।

সূত্র: webmd

Share