ঢেঁড়শ ডায়াবেটিস কমাতে সাহায্য করে। আসলেই এটি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য কতটুকু কার্যকর।

ডায়াবেটিস একটি সারা জীবনের রোগ যা আপনার দেহ রক্তে চিনির ব্যবহার কীভাবে করে সেটা বোঝায়। আপনার যদি টাইপ-2 ডায়াবেটিস ধরা পড়ে তবে একটি স্বাস্থ্যকর জীবনধারা আপনার গড়ে তুলতে হবে।

স্বাস্থ্যকর বা পুষ্টিকর খাবার খাওয়া এবং নিয়মিত ব্যায়াম করা ইত্যাদি রক্তে উচ্চ শর্করাকে নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে।

বাংলায় ঢেঁড়শ (অন্য নাম ভেন্ডি), হিন্দিতে Bhindi, ইংরেজিতে Okra এবং Lady’s Fingers মালভেসি পরিবারের এক প্রকারের সপুষ্পক উদ্ভিদ। এটি তুলা, কোকো ও হিবিস্কাসের সাথে সম্পর্কিত।

ঢেঁড়শের বৈজ্ঞানিক নাম Abelmoschus esculentus; অথবা Hibiscus esculentus L। ঢেঁড়শ গাছ একটি বর্ষজীবী উদ্ভিদ, যা ২ মিটার পর্যন্ত লম্বা হয়। ঢেঁড়শের আদি নিবাস ইথিওপিয়ার উচ্চভূমি এলাকায়।

ডায়াবেটিসে আক্রান্ত অনেক লোক জানিয়েছেন যে, খালি পেটে সকালে ঢেঁড়শ ভেজানো পানি পান করা রক্তে শর্করার নিয়ন্ত্রণকে উন্নত করতে সহায়তা করে। ঢেঁড়সে রয়েছে প্রচুর আঁশ যা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। সহজে হজম হয় বলে এটি বিপাকক্রিয়ায় সহায়তা করে।

ব্লাড সুগার কমাতে এর বিকল্প নেই। প্রতি একশ’ গ্রাম ঢেঁড়সে ০.০৭ মিলিগ্রাম থায়ামিন, ০.০৬ মিলিগ্রাম নিয়াসিন ও ০.১ মিলিগ্রাম রিবোফ্লাভিন রয়েছে। যা ডায়াবেটিস রোগীর স্নায়ুতন্ত্রে পুষ্টি সরবরাহ করে এবং সতেজ রাখে।

আসলে, ঢেঁড়শ আয়ুর্বেদিক শাস্ত্রে ব্যবহৃত যা রক্তে শর্করার মাত্রা কমাতে এবং ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করতে ব্যবহৃত হয়।

ঢেঁড়শ ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য কিভাবে ভালো:

ঢেঁড়শ কীভাবে ডায়াবেটিসে হাই ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করতে পারে?

ঢেঁড়শে অ্যান্টি-ডায়াবেটিক বৈশিষ্ট্য রয়েছে। ২০১১ সালে ফার্মাসি ও বায়োএলয়েড সায়েন্সেস জার্নালে প্রকাশিত একটি সমীক্ষা অনুসারে, ভারতে গবেষকরা দেখতে পেয়েছেন যে, ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ইঁদুরগুলোকে ঢেঁড়শ পীল খাওয়ানোর পর তাদের রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা হ্রাস পেয়েছে।

গবেষকরাও লক্ষ্য করেছেন যে, নিয়মিত প্রায় দশ দিনের জন্য ঢেঁড়সের নির্যাস খাওয়ানোর ফলে রক্তের শর্করা ধীরে ধীরে হ্রাস ঘটায়।

মূলত, এটি বিশ্বাস করা হয় যে ঢেঁড়শের অদ্রবণীয় ফাইবার অন্ত্রের ট্র্যাক্ট থেকে চিনির শোষিত হওয়ার হারকে কমিয়ে রক্তের গ্লুকোজ স্তর স্থিতিশীল করতে সাহায্য করতে পারে। বৈজ্ঞানিক গবেষণার বাইরে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত অনেক লোক ডায়েটে ঢেঁড়স অন্তর্ভুক্ত করে রক্তে শর্করার মাত্রা কমাতে পেরেছেন।

ঢেঁড়শ দ্রুত ডায়াবেটিস এবং ক্যান্সারের ঝুঁকি কমানোর জন্য সুপারফুড হিসাবে খ্যাতি অর্জন করছে। ফাইবারের একটি দুর্দান্ত উৎস হওয়ায়, ওজন হ্রাস করার চেষ্টা করা লোকেদের জন্য এটি উপকারী হতে পারে।

অনেকেই ঢেঁড়শ নামক সবজিটি খেতে পছন্দ করে না। বিশেষ করে বাচ্চারা জোর করে না খাওয়ালে ঢেঁড়স খেতেই চায় না। বড়রাও অনেকে ঢেঁড়শ একেবারেই পছন্দ করেন না। কিন্তু ঢেঁড়শ আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি সবজি।

নিয়মিত ঢেঁড়শ খাওয়ার অভ্যাস আমাদের অনেকগুলো শারীরিক সমস্যা থেকে মুক্ত রাখতে সক্ষম। ঢেঁড়শের রয়েছে অনেকগুলো কার্যকরী গুণ যা জানার পর আপনি অবশ্যই আগ্রহী হবেন এ সবজিটিকে নিয়মিত খাদ্য তালিকায় স্থান দিতে।

ঢেঁড়স ভেজানো জল বা পানি:

ঢেঁড়স ভেজানো জল বা পানি পান করা ভালো। কেউ কেউ এমনও পরামর্শ দিয়েছেন যে, এটি পান করা ডায়াবেটিসের লক্ষণগুলি হ্রাস করতে সহায়তা করে।

পানিতে ঢেঁড়স সারারাত ভিজিয়ে এই পানীয়টি তৈরি করা হয়। অনেকে আবার ঢেঁড়স পাতলা টুকরো করে কেটে সারারাত পানিতে ভিজিয়ে সকালে সেটা পান করেন।

সতর্কতাঃ

যা কিছু খাবেন পরিমাণমতো খাবেন। আপনার শরীরের অবস্থা বুঝে খাবেন। অতিরিক্ত কোনো কিছুই ভালো নয়।

রেফারেন্স:
Share