গ্লুকোমা রোগের লক্ষণ ও গ্লুকোমা কেন হয়?

চোখের রোগের মধ্যে গ্লুকোমা (glaucoma) অন্যতম একটি রোগ। গ্লুকোমা খুবই মারাত্মক একটি রোগ। সময়মত চিকিৎসা না করালে বড় বিপদ হতে পারে। এ রোগের মূল কারণ হল চোখের উপর অতিরিক্ত চাপ।

গ্লুকোমা রোগকে হলে নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব কিন্তু এ রোগে নিরাময় করা সম্ভব নয়। একবার গ্লুকোমা হলে সারাজীবন বয়ে বেড়াতে হয়।

গ্লুকোমা কী?

গ্লুকোমা হলে চোখের স্নায়ু ধীরে ধীরে ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং ধীরে ধীরে চোখের দৃষ্টি কমে যায়। এমনকি এতে এক সময় রোগী অন্ধ হয়ে যায়। সময়মতো ধৈর্য ধরে চিকিৎসা করলে এ অন্ধত্বের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

গ্লুকোমা রোগের লক্ষণ কী?

অনেক ক্ষেত্রেই রোগী এ রোগের কোনো লক্ষণ অনুধাবন করতে পারেন না। কিছু কিছু ক্ষেত্রে নিম্নের লক্ষণগুলো দেখা দিতে পারে। যেমন-

  • ঘন ঘন চশমার গ্লাস পরিবর্তন করা।
  • চোখে ঝাপসা দেখা বা আলোর চারপাশে রংধনুর মতো দেখা।
  • ঘন ঘন মাথাব্যথা বা চোখে ব্যথা হওয়া।
  • দৃষ্টিশক্তি ধীরে ধীরে কমে আসা।
  • অনেক সময় চলতে গিয়ে কোন কিছুর সাথে ধাক্কা লাগা।
  • মৃদু আলোতে কাজ করলে চোখে ব্যথা অনুভূত হওয়া।
  • চোখের কর্নিয়া সাদা হয়ে যাওয়া, চোখ লাল হওয়া, চোখ দিয়ে পানি পড়া ইত্যাদি।

গ্লুকোমা হওয়ার কারণ

  • পরিবারের অন্য কোনো নিকটাত্মীয়ের এ রোগ থাকলে।
  • বয়স বেশি হয়ে গেলে।
  • ডায়াবেটিস ও উচ্চরক্ত চাপ থাকলে।
  • মাইগ্রেন নামক মাথাব্যথা থাকলে।
  • উচ্চ রক্ত চাপের ওষুধ সেবন।
  • চোখের ছানি অপারেশন না করলে বা দেরি করলে।
  • চোখের অন্যান্য রোগের কারণে।
  • জন্মগত চোখের ত্রুটি ইত্যাদি।