গর্ভাবস্থায় তরমুজ। গর্ভবতী মায়েদের জন্য তরমুজ কি নিরাপদ?

পুষ্টি সফল গর্ভাবস্থার একটি অপরিহার্য অঙ্গ। গর্ভবতী মায়েরা তাদের নিজের জন্য এবং শিশুর জন্য কী খাচ্ছেন তা নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করা উচিত। ফল সবসময় গর্ভবতী মহিলাদের জন্য সুপারিশ করা হয় কারণ তারা গর্ভবতী মহিলাদের জন্য অনন্য সুবিধা নিয়ে আসে। তরমুজ কেবল নিরাপদই নয় গর্ভবতী মহিলাদের জন্য চরম উপকারী।

তরমুজ একটি পানি বা জল সমৃদ্ধ ফল যা গর্ভাবস্থায় অনেক উপকার করার জন্য তৈরি। তরমুজ ফোলাভাব এবং গর্ভাবস্থার জটিলতার ঝুঁকি থেকে শুরু করে মর্নিং সিকনেস বা সকালের অসুস্থতা ও চকচকে ত্বক অনেক উপকার বয়ে আনে গর্ভবতী মায়ের জন্য।  এর মধ্যে কয়েকটি সুবিধা বিজ্ঞান দ্বারা সমর্থিত।

তরমুজ পানিতে সমৃদ্ধ এবং মাঝারি পরিমাণে কার্বস, তামা এবং প্যানটোথেনিক অ্যাসিড সরবরাহ করে। পাশাপাশি ভিটামিন এ এবং সি-তে সমৃদ্ধ।  এটি লুটেইন এবং লাইকোপিন-দুটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ যা গর্ভাবস্থার কিছু জটিলতা থেকে রক্ষা করতে পারে।

গর্ভাবস্থায় আপনি কি তরমুজ খেতে পারেন?

হ্যাঁ, গর্ভাবস্থায় তরমুজ খাওয়া যেতে পারে। তরমুজগুলি যখন পরিমিতভাবে খাওয়া হয় তবে এটি কেবল নিরাপদই নয় তবে গর্ভবতী মহিলা এবং তার শিশুর জন্যও খুব দরকারী।

তরমুজ গর্ভবতী মহিলাদের জন্য আনা অনন্য সুবিধার একটি তালিকা নীচে দেওয়া হল:

তরমুজ কার্বস, ভিটামিন, খনিজ এবং উপকারী উদ্ভিদ যৌগগুলির উৎস। এটিতে প্রায় ৯৫% জল রয়েছে, যেকারণে এটি একটি বিশেষত হাইড্রেটিং ফল হিসাবে পরিচিত। তরমুজ লুটেইন এবং লাইকোপিন সমৃদ্ধ, দুটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস যা আপনার শরীরকে ক্ষতি এবং রোগ থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে।

এই অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টগুলি চোখ, মস্তিষ্ক এবং হার্টের স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে পারে এবং পাশাপাশি নির্দিষ্ট ধরণের ক্যান্সারের বিরুদ্ধে সুরক্ষা সরবরাহ করতে পারে। কিছু গবেষণা পরামর্শ দেয় যে, এই নির্দিষ্ট অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টগুলি জন্মের আগে এবং অন্যান্য গর্ভাবস্থার জটিলতার ঝুঁকি হ্রাস করতে সহায়তা করে।

প্রিক্ল্যাম্পসিয়া (Preeclampsia)-এর ঝুঁকি হ্রাস করতে পারে:

প্রিক্ল্যাম্পসিয়া হল উচ্চ রক্তচাপ, ফোলা বৃদ্ধি এবং প্রস্রাবে প্রোটিন হ্রাস দ্বারা চিহ্নিত গর্ভাবস্থার জটিলতা। এটি একটি মারাত্মক অবস্থা এবং অকাল জন্মের প্রধান কারণ। তরমুজ লাইকোপিন সমৃদ্ধ, একটি অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট যা প্রেক্ল্যাম্পসিয়া হিসাবে পরিচিত গর্ভাবস্থা সম্পর্কিত জটিলতার ঝুঁকি হ্রাস করতে পারে।

অম্বল এবং অম্লতা ত্রাণ:

গর্ভাবস্থা দেহে বড় হরমোনীয় পরিবর্তন ঘটায়। এই পরিবর্তনগুলি কিছুটা অস্বস্তি নিয়ে আসে। গর্ভাবস্থায় মহিলাদের মধ্যে অস্বস্তির অনেক কারণগুলির মধ্যে দুটি হল অ্যাসিডিটি এবং অম্বল। তরমুজ হজম সিস্টেমে প্রশান্তিপূর্ণ প্রভাব ফেলে এবং এসিডিটি এবং অম্বল থেকে মুক্তি দিতে পারে। সুতরাং, আপনি যখন ক্রমবর্ধমান পাচনতন্ত্রের সমস্যায় ভুগছেন তখন সরাসরি এই সুস্বাদু তরমুজ খেয়ে দেখতে পারেন।

এডিমা প্রতিরোধ করে:

গর্ভবতী মহিলাদের প্রায়শই হাত ও পায়ে ফোলাভাব দেখা দেয় যা এডিমা নামেও পরিচিত। শরীরে কিছু নির্দিষ্ট টিস্যুতে অস্বাভাবিক তরল জমা হওয়ার কারণে এডিমা হয়। তরমুজগুলিতে উচ্চ জলের পরিমাণ এডিমা থেকে মুক্তি দেয়।

ডিহাইড্রেশনের বিরুদ্ধে কার্যকর:

গর্ভাবস্থার সাথে যুক্ত অন্য একটি সাধারণ সমস্যা হল ডিহাইড্রেশন। ডিহাইড্রেশন অকাল জন্মের মতো গর্ভবতী মহিলাদের ক্লান্তি এবং অলসতা থেকে শুরু করে আরও গুরুতর সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। তরমুজগুলি প্রায় নব্বই শতাংশ জল নিয়ে গঠিত এবং ডিহাইড্রেশন নিয়ন্ত্রণে বিশেষভাবে কার্যকর।

প্রাতঃকালীন অসুস্থতা:

গর্ভবতী মহিলারা বিশেষত গর্ভাবস্থার প্রথম কয়েক সপ্তাহের মধ্যে বমি বমি ভাব এবং অনেকে প্রায় বমি করে থাকেন। যদিও এটিকে সকালের অসুস্থতা বলা হয়, এই আউটগুলি সারা দিন যে কোনও সময় ঘটতে পারে। সকালে এক গ্লাস তরমুজের রস এই ব্যাধি মোকাবেলায় খুব কার্যকর। সকালের অসুস্থতা থেকে মুক্তি দেওয়ার পাশাপাশি সকালে এক গ্লাস তরমুজের রস খুব সতেজ এবং শক্তি যোগায়।

অনাক্রম্যতা বাড়ায়:

একজন গর্ভবতী মহিলা তার  নিজের দেহ এবং বেড়ে ওঠা শিশুর দেহ দুটির জন্য সংক্রমণ এবং রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করে। এটি কখনও কখনও অনাক্রম্যতা স্তরে একটি ড্রপ হতে পারে। তরমুজগুলিতে লাইকোপেন নামক একটি শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট রয়েছে যা তরমুজগুলিতে লাল রঙ সরবরাহ করে এবং রোগ প্রতিরোধ স্তরকে বাড়িয়ে তুলতে পরিচিত।

দেহকে ডিটক্সাইফাই করা:

তরমুজগুলির মধ্যে মূত্রবর্ধক বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা বিষাক্ত পদার্থগুলি বের করতে এবং দেহে ইউরিক অ্যাসিড হ্রাস করতে সহায়তা করে। তরমুজগুলির এই সম্পত্তি গর্ভাবস্থায় লিভার এবং কিডনিগুলির সঠিক ক্রিয়ায় সহায়তা করে। এটি ত্বকের এসপিএফ বাড়াতেও সহায়তা করে।

 পেশী বাধা থেকে মুক্তি দেয়:

একজন গর্ভবতী মহিলার দেহ ক্রমাগত যে পরিবর্তনগুলির মধ্য দিয়ে চলছে তার সাথে খাপ খাইয়ে নেওয়ার চেষ্টা করতে হয়। হরমোন পরিবর্তন এবং দ্রুত ওজন বৃদ্ধি পেশী বাধা এবং ব্যথা হতে পারে।  তরমুজ এটি উপশম করতে কার্যকর।

ত্বকের রঞ্জকতা রোধ করে:

গর্ভাবস্থায় কোনও মহিলার দেহে যে হরমোনের পরিবর্তনগুলি ঘটায় তা ত্বককে হালকা এবং নিস্তেজ দেখাতে পারে। তরমুজ হজমে উন্নতি করে এবং বিষাক্ত পদার্থগুলি বের করে দেয়, ফলে প্রাকৃতিকভাবে চকচকে ত্বক রঞ্জকতা থেকে মুক্ত থাকে।

কোষ্ঠকাঠিন্য হ্রাস করে:

কোষ্ঠকাঠিন্য হল গর্ভাবস্থায় মহিলাদের আরও একটি সাধারণ অভিযোগ। তরমুজগুলিতে ফাইবারের পরিমাণ বেশি, যা মল গঠনে সহায়তা করে; উচ্চ জলের সামগ্রীগুলি অন্ত্রের প্রয়োজনীয় চলাচলে সহায়তা করে।

ভ্রূণে স্বাস্থ্যকর হাড়গুলি প্রচার করে:

গর্ভবতী মহিলাদের তাদের ডায়েটে তরমুজ অন্তর্ভুক্ত করার আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হল তরমুজগুলি ক্রমবর্ধমান শিশুর হাড় এবং দাঁত গঠনে সহায়তা করে। তরমুজগুলিতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্যালসিয়াম এবং পটাসিয়াম থাকে এবং ভ্রূণের সঠিক হাড়ের বিকাশের জন্য এই খনিজগুলি প্রয়োজনীয়।

ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল অফ গাইনোকোলজি অ্যান্ড প্রসেসট্রিক্সের একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, মহিলারা নিয়মিত লাইকোপেন পরিপূরক গ্রহণ করেন তাদের প্রিক্ল্যাম্পিয়া হওয়ার সম্ভাবনা 50% কম থাকে। তরমুজ, এইভাবে গর্ভবতী মহিলাদের জন্য একটি দুর্দান্ত ফল। তরমুজটি বেশ কয়েকটি খনিজ এবং ভিটামিন দ্বারা ভরাও রয়েছে যা শিশুর দৃষ্টি, মস্তিষ্ক, স্নায়ুতন্ত্র এবং প্রতিরোধ ক্ষমতাতে সহায়তা করে।

সতর্কতাঃ

যা কিছু খাবেন পরিমাণমতো খাবেন। আপনার শরীরের অবস্থা বুঝে খাবেন। অতিরিক্ত কোনো কিছুই ভালো নয়। আপনি যদি কোনো জটিল রোগে আক্রান্ত হন বা নিয়মিত কোনো ডাক্তারের তত্বাবধানে থেকে কোনো ওষুধ গ্রহণ করেন তাহলে খাবার আগে অবশ্যই আপনার ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী খাবেন।

সূত্রঃ

Does Watermelon Have Benefits for Pregnancy?

Share