কিটো ডায়েট কি? কিটো ডায়েটে কি খেতে পারবেন ও কি খেতে পারবেন না।

কিটো ডায়েট বলতে আসলে স্বল্প কার্বোহাইড্রেইট ও উচ্চ চর্বি সমৃদ্ধ খাবারকে বোঝায়, এটাকে অনেকে “মিলিটারি ডায়েট” ও বলে থাকে। নানারকম ডায়েটের মধ্য থেকে অনেকেই কিটো ডায়েটকে বেছে নিচ্ছেন। কিটো ডায়েটে মূলত কার্বোহাইড্রেটকে এড়িয়ে চলা হয়। কিটো ডায়েটের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে কার্বোহাইড্রেটকে পুড়িয়ে ফেলা। চর্বি বার্ন হয়ে গেলে শরীর জমা কার্বোহাইড্রেটও বার্ন হতে শুরু করে, ফলে ওজন কমে যায়।

কিটো ডায়েট হল সুপার লো-কার্ব ডায়েট। এই ডায়েটে কার্বোহাইড্রেইট থাকবে ৫%, প্রোটিন থাকবে ২৫% আর ফ্যাট থাকে ৭০%। মানে আপনি সারাদিন যতটা খাবার খাবেন তার মধ্যে খাবারের পার্সেন্টেজ এমন হবে। আমাদের নরমাল ডায়েটে ৫০% কার্বোহাইড্রেট থাকে, ২০% প্রোটিন আর ৩০% ফ্যাট থাকে। ধরা যাক আপনি ১২০০ ক্যালরি খাবেন সারাদিনে। তার ৫০% কার্বোহাইড্রেইট খেতে হবে।

এই ডায়েট অনুসরণ করা বেশ কঠিন। ভাত আমাদের প্রধান খাবার হওয়াতে তা একদম কমিয়ে ফেলা ও কিটো ডায়েটের আনুসঙ্গিক অন্যান্য নিয়মাবলি মেনে চলা বেশ কষ্টকর। কিটো ডায়েট চার প্রকার।

যেসব খাবার খেতে পারবেন না

  • চিনি বা মিষ্টিজাতীয় (কোক, ফলের জুস, কেক, আইসক্রীম, চকলেট) কোনো কিছু খাওয়া যাবে না।
  • আটার তৈরি ভাত, পাস্তা, নুডলস, ওটস, কর্ন ফ্লেক্স খাওয়া যাবেনা।
  • সব ধরনের ফল নিষেধ।
  • সব ধরনের ডাল নিষেধ।
  • মাটির নিচে হয় এমন সব সবজি যেমন: আলু, মুলা, গাজর, কচু খাওয়া যাবে না।
  • যে কোনো ধরনের প্রক্রিয়াজাত খাবার বাদ।
  • যেসব খাবার খাওয়া যাবে

    মাংস, সব ধরনের মাছ, ডিম, বাটার, বাদাম, ঘি, সবুজ যেকোনো সবজি, পালং, ব্রকলি, বাঁধাকপি, সবধরনের মশলা।