হাতের তালু ও পায়ের তলা ঘামার কারণ ও প্রতিকার।

অতিরিক্ত হাত-পা ঘামা একটি বিব্রতকর এবং অস্বস্তিকর শারীরিক সমস্যা। হাত বা পায়ের তালু ছাড়াও শরীরের অন্যান্য অংশে অতিরিক্ত ঘাম হতে পারে। মৃদু থেকে শুরু করে ফোঁটা-ফোঁটা পানির মত ঘাম পড়তে পারে। হাত বা পা কেন ঘামে তার সুনির্দিষ্ট কারণ এখনো বের করা যায়নি।

তবে বংশগতভাবে এ রোগ থাকা, শরীরের ভেতরের ভারসাম্যহীনতা, মানসিক চাপ, দুশ্চিন্তা প্রভৃতি কারণে হাত বা পা ঘামতে পারে।

স্বাভাবিক এর তুলনায় অত্যাধিক পরিমানে হাতের তালু ও পা ঘামতে থাকলে তা হাইপার হাইড্রোসিস (Hyper Hydrosis) হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।

চলুন দেখে নেওয়া যাক, হাতের তালু ও পায়ের তলা ঘামার কারণ কি ও এর প্রতিকার কিভাবে করা যায় :

হাত-পা ঘামার কারণ :

হাত বা পা ঘামার প্রাথমিক কারণ হিসেবে তেমন কিছু পাওয়া যায়না। তবে অতিরিক্ত স্নায়বিক উত্তেজনার কারণে ঘাম হয়ে থাকে। এ ছাড়া আরও অনেক কারণে হাত-পা ঘেমে যেতে পারে। যেমন:

  • পারকিনসন্স ডিজিজ
  • থাইরয়েডে সমস্যা
  • ডায়াবেটিস
  • জ্বর
  • শরীরে গুলুকোজের স্বল্পতা
  • মেনোপোজ প্রভৃতি

অনেক সময় শরীরে ভিটামিনের অভাব থাকলে হাত-পা অতিরিক্ত ঘামতে শুরু করে। আবার মানসিক চাপ, দুশ্চিন্তা ও জেনেটিক কারণে হাত-পা ঘেমে থাকে।

হাত-পা ঘামা প্রতিরোধে করণীয়

কিছু কিছু ঘরোয়া উপাইয়ে হাতের তালু ও পায়ের তলা ঘামা প্রতিরোধ করা যায় :

পানি বা জল ব্যবহার করলে :

শরীর ঠাণ্ডা করতে এবং ঘাম নিয়ন্ত্রণে আনতে পানি একটি চমৎকার উপাদান। হাত-পায়ের তালু ঘামা কমিয়ে আনতে সারাদিনে পর্যাপ্ত পানি পান করুন। এতে করে শরীর ঠাণ্ডা থাকবে এবং ঘাম কম হবে।

শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রতিদিন কমপক্ষে ২ থেকে ৩ লিটার পানি পান করুন। সারাদিনে পানি পানের পাশাপাশি বারবার পানি দিয়ে হাত ধোয়ার চেষ্টা করুন।

লেবুর রস ব্যবহার করলে :

হাতের তালু ও পায়ের তলা ঘামার প্রতিরোধে লেবুর রস খুবই কার্যকরী। কয়েক ফোঁটা লেবুর রস হাত-পায়ের তালুতে লাগিয়ে নিন। যদি আপনার ত্বক সেনসিটিভ হয়, সেক্ষেত্রে লেবুর রসের সাথে সামান্য লবণ মিশিয়ে হাত-পায়ের তালুতে ঘষতে থাকুন যতক্ষণ না এটি শুকিয়ে যায়, দেখবেন ঘামের সমস্যা অনেকটাই কমে আসবে।

বেকিং সোডা ব্যবহার করলে :

হাত-পায়ের তালু ঘামা প্রতিরোধের অন্যতম সেরা ঘরোয়া উপাদান হচ্ছে বেকিং সোডা। গরম পানিতে তিন চামচ বেকিং সোডা দিন এবং এই পানিতে আধা ঘণ্টার মতো হাত ডুবিয়ে রাখুন এবং হাত ঘষুন। আধা ঘণ্টা হয়ে গেলে একটি শুকনা কাপড় দিয়ে হাত মুছে ফেলুন। পায়ের ক্ষেত্রেও একই পদ্ধতি অবলম্বন করুন। এভাবে কয়েকবার করলে আপনার হাতের তালু ও পায়ের তলা ঘামা ধুর হবে।

গোলাপজল ব্যবহার করুন :

হাত-পায়ের তালু ঘামা প্রতিরোধে গোলাপজল খুবই কার্যকরী। আপনি ঘরে নিজেও এই গোলাপজল বানিয়ে নিতে পারেন। কিছু তাজা গোলাপের পাপড়ি এক কাপ পানিতে ১৫ মিনিটের মতো ফুটিয়ে নিন। এবার ছাঁকনিতে পানিটুকু ছেঁকে নিয়ে একটি বোতলে সংরক্ষণ করে তুলার সাহায্যে এই পানি হাত-পায়ের তালুতে ভালো করে লাগান বা ঘষুন। এভাবে কয়েকবার করলে আপনার হাতের তালু ও পায়ের তলা ঘামা ধুর হবে।

আলু ব্যবহার করুন :

আলু অতিরিক্ত ঘাম শোষণ করতে দারুণ কার্যকরী একটি উপাদান। একটি আলু স্লাইস করে কেটে হাত ও পায়ের তালুতে ঘষুন। কিছু সময়ের জন্য অপেক্ষা করে হাত ও পায়ের তালু পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। শুধু হাত-পায়ের তালুই নয়, আপনার শরীরের আরো অন্যান্য অংশ যেখানে অতিরিক্ত ঘাম হয়, সেসব অংশেও আলু ব্যবহার করতে পারেন।

রেফারেন্স:
Share