হঠাৎ রাগ হলে কিভাবে তা নিয়ন্ত্রণ করবেন?

রাগ মানুষের স্বাভাবিক একটি আবেগ। এই আবেগকে ততক্ষন ভালো আবেগ বলা যাবে যতক্ষণ রাগ আপনার কন্ট্রোলে থাকবে। আপনার রাগ কে ব্যবহার করে কোন সমস্যার সমাধান করলে অবশ্যই সেটি ভালো।
কিন্তু যদি রাগ আপনাকে বেপরোয়া করে দেয়, আপনার বা আপনার পাশের মানুষকে মানসিক বা শারীরিক ভাবে কষ্ট দেয় এবং পরে আপনি আপনার কৃতকর্মের জন্য অনুশোচনা করেন তাহলে এমন রাগ আসলেই ভালো নয়। রাগ যেহেতু নিয়ন্ত্রণ করা যায়, প্রত্যেক মানুষের দায়িত্ব তার রাগকে নিয়ন্ত্রণে রাখা। রাগ নিয়ন্ত্রণের বেশ কিছু উপায় আছে। আমরা কার্যকরী কিছু উপায় নিয়ে আলোচনা করব:

উল্টা দিকে গণনা করুন:
হঠাৎ রেগে গেলে 10 থেকে উল্টা দিকে গণনা করা শুরু করুন। যদি আপনি প্রচন্ড রেগে যান তাহলে 100 থেকে উল্টা দিকে গণনা শুরু করুন। উল্টা দিকে গণনা শুরু করলে আপনার হার্টবিট কমতে শুরু করবে। হার্টবিট কমতে শুরু করলে আপনার রাগও প্রশমিত হতে শুরু করবে।

জায়গা পরিবর্তন করুন:
যে অবস্থার মধ্যে আপনি হঠাৎ থেকে গেলেন সেই অবস্থার পরিবর্তন করুন। উদাহরণস্বরূপ বলা যেতে পারে আপনি ঘরের মধ্যে কোন কারনে রেগে গেলেন দয়া করে নিজের অবস্থান পরিবর্তন করে ঘরের বাহিরে যান। সম্ভব হলে বাহিরে অন্য কিছুতে মননিবেশ করুন দেখবেন রাগ প্রশমিত হতে শুরু করেছে।

যতটা সম্ভব কম কথা বলুন:
যতটা সম্ভব কম কথা বলুন এবং কথা না বললেই সব থেকে বেশি ভালো। রাগের মুহূর্তে আপনার মুখ থেকে যে কথাগুলো বের হবে তার মধ্যে থাকবে রাগের ঝাঁজ এবং কথাগুলি আপনার সুচিন্তিত কথা নয়। রাগের মুহূর্তে কম কথা বললে রাগ বৃদ্ধি পায় না। আপনি কম কথা বললে রাগের সময় চিন্তা করে কথা বলার সুযোগ থাকে।

বড় বড় নিঃশ্বাস নিন:
রাগের মুহূর্তে স্বাভাবিকভাবে মানুষ খুব দ্রুত নিঃশ্বাস নেয়। কিন্তু রাগকে কন্ট্রোল করতে হলে আমাদের বিপরীত কাজটি করতে হবে। আমাদের নাক দিয়ে বড় বড় নিঃশ্বাস নিতে হবে এবং মুখ দিয়ে তা ছাড়তে হবে। কিছুক্ষণ ধরে এই কাজটি করলে রাগ কমতে শুরু করবে।

একটা সময়ের ব্রেক নিন:
একটা সময়ের ব্রেক নিলে অনেক সময় রাগ প্রশমিত হয়। হঠাৎ রেগে গেলে অন্যদের থেকে সরে গিয়ে নিরিবিলি একান্তে কিছু সময় কাটান। নিরিবিলি একান্তে কিছু সময় কাটালে রাগের আবেগগুলো স্বাভাবিক হয়।

পছন্দের গান শুনুন:
এটা কঠিন যে রাগের মধ্যে গান শোনার মুড আনা। তারপরেও দেখা গেছে রাগের মুহূর্তে মানুষ তার প্রিয় কোন গান শুনলে তার মানসিক অবস্থা দ্রুত বদলে যায়। প্রিয় গান মানুষের ফোকাস কে তার বর্তমান অবস্থা থেকে অন্য দিকে নিয়ে যা রাগ কমাতে কার্যকরী।

ভালো বন্ধুর সাথে কথা বলুন:
জীবনে ভালো সাপোর্টিভ বন্ধু থাকলে রাগের মুহূর্তে তার সাথে কথা বলা যেতে পারে। অনেক সময় বন্ধুর সাথে কথা বলার ফলে একই ঘটনা ভিন্ন দৃষ্টিকোণ দিয়ে দেখা সম্ভব হয়। ভিন্ন ভিন্ন দৃষ্টিকোণ রাগের কারণকে আরো স্পষ্ট করে এবং রাগ প্রশমিত করতে সাহায্য করে।

মেডিটেশন করুন :
মেডিটেশনের অভ্যাস থাকলে মেডিটেশন করুন। মেডিটেশন হল আপনার মনকে নিয়ন্ত্রণ করার উপায়। হঠাৎ রেগে গেলে মেডিটেশনের মাধ্যমে আমাদের মনের রাগকে নিয়ন্ত্রণ করা যেতে পারে।

Share