রোজার মাসে ইফতারের পাতে সুস্বাদু ছোলা বা ছোলা ভুনা রেসিপি।

ছোলা বাঙালির খাদ্যাভ্যাসে অতি পরিচিত একটি উপাদান। রোজার মাসে ইফতারের পাতে ছোলা থাকবেই। মুড়ি মাখায় ছোলার উপস্থিতি সবচাইতে বেশি দেখা যায়।
সারা বছরই ছোলা খাওয়ার চল দেখা যায়। কেউ মশলায় ভেজে খান কেউ আবার কাঁচা-ই খেয়ে থাকেন। রমজান মাসে ইফতারিতে ছোলা থাকেই।
সুস্থ থাকতে হলে কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করা অত্যন্ত জরুরি।
কারণ কোলেস্টেরল বেশি থাকার কারণে দেখা দিতে পারে হৃদরোগ, শারীরিক স্থূলতা, স্ট্রোক ইত্যাদিসহ অনেক দূরারোগ্য ও প্রাণঘাতি রোগ। আর ছোলায় থাকা দ্রবণীয় ভোজ্য আঁশ এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।
পুষ্টিগুণে সম্বৃদ্ধ এই ছোলা হোক নিত্যদিনের খাবার তালিকার সঙ্গী।  পরিবার-পরিজন নিয়ে ইফতারিতে মজাদার স্বাদের ছোলা ভুনা খেতে চাইলে আপনাকে একটু কষ্ট করতে হবে।
রোজা ছারাও বিকেলের নাস্তায় ছোলা মুড়ি অনেক বিখ্যাত। ছোলা খুবই শক্তিশালী ও সাস্থ্য সম্মত খাবার। তাহলে দেখে নেওয়া যাক কি কি লাগছে ছোলা ভুনা করতে-

উপকরণ:

১ কাপ ছোলা
১/৪ কাপ পেঁয়াজ কুচি
২ টি টমেটো কিউব করে কাটা
২ টি কাঁচামরিচ কুচি
৩ টেবিল চামচ তেল
২ চা চামচ ধনে গুঁড়ো
১ চা চামচ জিরা গুঁড়ো
আধা চা চামচ মরিচ গুঁড়ো
আধা চা চামচ হলুদ গুঁড়ো
দেড় চা চামচ লেবুর রস
১ চা চামচ আদা-রসুন বাটা
আধা চা চামচ গরম মসলা গুঁড়ো
লবণ স্বাদমতো
১ চিমটি বিট লবণ
ধনে পাতা কুচি ইচ্ছে

পদ্ধতি:

প্রথমে ছোলা বুট পানিতে ভিজিয়ে রাখুন সারারাত। এরপর সামান্য লবণ ও হলুদ গুঁড়ো দিয়ে ছোলা বুট সেদ্ধ করে নিন । চুলায় প্যানে তেল দিয়ে গরম করে আদা-রসুন বাটা দিন । একটু লালচে হয়ে এলে এতে পেঁয়াজ কুচি দিন। পেঁয়াজ কুচি নরম হয়ে এলে বাকি সকল মসলা একের পর একে প্যানে দিয়ে সামান্য পানি দিয়ে মসলা কষাতে থাকুন। মসলা কষে আসার পর টমেটো কুচি দিয়ে ভালো করে নেড়ে ছোলা বুট ঢেলে দিন। ভালোমতো নাড়াতে থাকুন মসলা মাখা মাখা হয়ে যাওয়া পর্যন্ত। এরপর লেবুর রস দিয়ে ভালো করে নেড়ে উপরে ধনে পাতা কুচি ছিটিয়ে নামিয়ে নিন। ব্যাস, তৈরি মজাদার ছোলা বুট।

Share