ভিটামিন গ্রহণের সঠিক সময় ও নিয়ম।

শরীরে ভিটামিনের অভাব হলে ভিটামিন খেতে হবে এটা এখন খুবই সাধারণ বিষয়। অনেক সময় ডাক্তার ও আমাদেরকে ভিটামিন খাওয়ার পরামর্শ দেন। তবে ভিটামিন খাবার কিছু নিয়ম অসময় আছে। ভিটামিন খেলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী খাওয়া উচিত। আমরা অবশ্য এত কিছু চিন্তা না করে বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন গ্রহণ করি।

প্রত্যেকটি ভিটামিন খাওয়ার আলাদা আলাদা নিয়ম আছে। কোন কোন ভিটামিন খাওয়ার পরে আবার কোন কোন ভিটামিন খাওয়ার আগে আবার কোন কোন ভিটামিন দুপুরের খাবারের আগে।

অসুস্থতার কারণে বা পুষ্টির অভাবে কিংবা জীবনের কোন গুরুত্বপূর্ন অধ্যায় যেমন: গর্ভকালীন সময় বাড়তি পুষ্টির জন্য ডাক্তার ভিটামিন গ্রহণ করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। এছাড়া যখন আমাদের দৈনিক খাবার থেকে দেহের চাহিদা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদানের ঘাটতি পূরণ হয়না অথবা সাময়িক অসুস্থতার কারণে বাড়তি পুষ্টির প্রয়োজন হয় তখন স্বাভাবিক খাবারের পাশাপাশি বাড়তি পুষ্টি উপাদানের চাহিদা পূরন করার জন্য ডাক্তার আমাদেরকে ভিটামিন, মিনারেলস বা মাল্টিভিটামিন গ্রহণ করার পরামর্শ দেন।

কোন সময়ে কোন ভিটামিন গ্রহণ করবেন তা নির্ভর করে আপনি কি ধরণের ভিটামিন খাবেন। যাইহোক প্রতিটি ভিটামিন তার নিয়ম অনুযায়ী খেতে হবে। তা না হলে এটা পুরটা কার্যকরী হবে না। তাই আমাদের আগে ভিটামিন খাওয়ার নিয়ম জানতে হবে –

ফ্যাট-দ্রবণীয় ভিটামিন গ্রহণের সেরা সময়

ভিটামিন “এ”, ভিটামিন “কে”, ভিটামিন “ই” এবং ভিটামিন “ডি” ফ্যাট-দ্রবণীয় ভিটামিন। ফ্যাট-দ্রবণীয় ভিটামিন গ্রহণের সর্বোত্তম সময় হল সন্ধ্যায় খাবারের সাথে। এই ভিটামিনগুলি মেদকে দ্রবীভূত করে রক্ত প্রবাহে নিয়ে যায় এবং গুরুত্বপূর্ণ কাজ করে।

গর্ভাবস্থায় ভিটামিন গ্রহণের সেরা সময়

গর্ভাবস্থায় ভিটামিন একটু বেশি প্রয়োজন হয়। তাই পুষ্টিকর খাবারের পাশাপাশি ভিটামিন পরিপূরক হিসাবেও গ্রহণ করতে হয়। গর্ভকালীন সময়ে গর্ভবতী মায়েরা যে ভিটামিনগুলো খাই সেই ভিটামিনগুলি মাল্টিভিটামিন, তাই এগুলো দুপুরে খাবার আগে গ্রহণ করা সঠিক সময়।

আমেরিকান ক্যান্সার অফ প্রসেসট্রিক্স অ্যান্ড গাইনোকোলজির (ACOG) অনুযায়ী প্রসবপূর্ব ভিটামিনে ক্যালসিয়াম, আয়রন এবং ফলিক এসিড থাকে। খালি পেটে আয়রন শোষণ ভালো হয়। আয়রন যদি ভিটামিন “সি” যুক্ত কোনও পানীয় যেমন কমলার রস দিয়ে পান করা হয় তবে এটি আরও ভালভাবে শোষিত হয়।

কিছু গর্ভবতী মায়েদের ভিটামিন গ্রহণ করার কারণে বমিভাব এবং কোষ্ঠকাঠিন্যের মতো কিছু লক্ষণ দেখা দেয়। এক্ষেত্রে তাদের খালি পেটে বা এক গ্লাস পানির সাথে ভিটামিন গ্রহণের পরামর্শ দেয়। যদি মনে হয় সকালে খালি পেটে যে ভিটামিনগুলি গ্রহণ করছেন এতে আপনি অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। তাহলে ঘুমোতে যাওয়ার আগে সেগুলি গ্রহণ করার চেষ্টা করুন।

পানিতে-দ্রবণীয় ভিটামিন গ্রহণ করার সেরা সময়

পানিতে-দ্রবণীয় ভিটামিন গ্রহণ করার সেরা সময় হলো খালি পেটে। ভিটামিন “সি”, ভিটামিন “বি” এবং ফোলেট (ফলিক অ্যাসিড) পানিতে দ্রবণীয়। পানিতে-দ্রবণীয় ভিটামিন খালি পেটে সব থেকে বেশি শোষিত হয়। তার অর্থ সকালে খাবার খাওয়ার ৩০ মিনিট আগে বা খাওয়ার দুই ঘন্টা পরে পানিতে-দ্রবণীয় ভিটামিন গ্রহণ করা উচিত।

ভিটামিন গ্রহণের সময় কিছু সতর্কতা

ভিটামিন পরিপূরক প্রস্তাবিত পরিমাণের চেয়ে বেশি গ্রহণ করবেন না। গর্ভবতী মায়েরা প্রসবপূর্ব ভিটামিনগুলি কখনই বেশি খাবেন না। আপনি যদি প্রসবপূর্ব ভিটামিন প্রয়োজনের তুলনায় বেশি খান তাহলে আপনার শরীরে ভিটামিন “এ” এর পরিমাণ বেশি হতে পারে যা গর্ভের শিশুর জন্য ক্ষতিকর।

রেফারেন্স: