তেলাপোকা সমস্যা দূর করতে ও নিয়ন্ত্রণে করণীয়।

ভীষণ বিরক্তিকর একটি প্রাণীর নাম তেলাপোকা। তেলাপোকা খাবারের মধ্যে লালার মাধ্যমে মাইক্রোঅর্গানিজম (এক ধনের অনুজীব) ছড়ায়, যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। তেলাপোকা এমন এক কীট যা কেউ পছন্দ করেন না।

অনেকে তেলাপোকা ভয় পায় আবার অনেকে ভয় পায় না। কিন্তু যারা ভয় পায় না, তারাও এটা দেখলে অস্বস্তিবোধ করে। তেলাপোকা অপরিষ্কার পরিবেশ থেকে জন্মায় এবং এটি নানা ধরণের জীবাণু বহন করে বেড়ায়। এমনকি কখনো কখনো খাবার-দাবার ঢাকা না থাকলে এটি খাবারের উপর উঠে জীবাণু ছড়িয়ে থাকে।

আর যার ফলে আমরা নানা ধরণের অসুখে আক্রান্ত হয়ে থাকি। তাই এই পোকাকে ঘর থেকে শিগগরিই বের করা উচিত। কিন্তু বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েও এর থেকে পরিত্রাণ পাচ্ছেন না। আর তাই এবার এসব যন্ত্রণা থেকে রেহাই পাওয়ার প্রাকৃতিক কিছু উপায় সম্পর্কে জেনে নিন-

ন্যাপথলিন:

তেলাপোকা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর। তাই সবার আগে তেলাপোকা দূর করার উপায় খুঁজতে হবে। এক্ষেত্রে তেলাপোকা তাড়ানোর খুব কার্যকরী একটি পদ্ধতি হলো ন্যাপথলিনের ব্যবহার। যেসব স্থানে এরা বসবাস করে এর প্রত্যেকটা স্থানে ন্যাপথলিন ছিটিয়ে দিয়ে রাখুন।দেখবেন কয়েক দিনের মধ্যে তেলাপোকা কমে গেছে।

তেজপাতা:

তেলাপোকা দূর করতে সাহায্য করে তেজপাতা। কয়েকটি তেজপাতা গুঁড়া করে নিয়ে যেসকল স্থানে তেলাপোকা আসতে পারে সেখানে তেজপাতার গুঁড়া ছড়িয়ে দিন। তেলাপোকা তেজপাতার গন্ধ সহ্য করতে পারে না।

শসা:

শসার খোসা তেলাপোকা দূর করতে কার্যকরী। একটি অ্যালুমিনিয়ামের ক্যানে কিছু শসার খোসা নিয়ে ক্যানটি তেলাপোকা আসার স্থানে রেখে দিন। দেখবেন তেলাপোকা উপদ্রব বন্ধ হয়ে গেছে। শসার খোসা অ্যালুমিনিয়ামের সাথে বিক্রিয়া ঘটিয়ে দুর্গন্ধ সৃষ্টি করে থাকে। যা তেলাপোকার মৃত্যু ত্বরান্বিত করে থাকে।

গোলমরিচের গুঁড়া:

একটি মগে এক লিটার পানি নিন এবং এতে রসুনের কোয়া, পেঁয়াজের পেস্ট এবং এক টেবিল চামচ গোলমরিচের গুঁড়া দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এবার এটি স্প্রে করে দিন যেসব জায়গায় তেলাপোকা বেশি আসে।

প্রেট্রোলিয়াম জেলি:

একটি জারে প্রেট্রোলিয়াম জেলি নিন। এবার এতে কিছু ফলের খোসা যেমন: আম, কলা, আপেল রেখে দিন। ঘরের যে জায়গা দিয়ে তেলাপোকা প্রবেশ করে সেখানে এই জারটি রেখে দিন। ফলের খোসার গন্ধ তেলাপোকাকে আকৃষ্ট করবে আবার প্রেট্রোলিয়াম জেলি তেলাপোকাকে জারের ভিতরে ঢুকতে বাঁধা দিবে। তেলাপোকা যখন জারের চারপাশে এসে জমে যাবে তখন স্প্রে বা সাবান পানি ছিটিয়ে দিন। দেখবেন তেলাপোকা এক নিমিষে দূর হয়ে গেছে।

বেকিং সোডা এবং চিনি:

এটা তেলাপোকা মারার একটি সহজ পদ্ধতি। বেকিং সোডা এবং চিনির একটি মিশ্রণ তৈরি করে, তেলাপোকা জন্মায় এমন জায়গায় ছিটিয়ে দিন। চিনির আকর্ষণে তেলাপোকা কাছে আসবে আর বেকিং সোডা এগুলোকে মারতে সাহায্য করবে।

সাবান:

তেলাপোকা থেকে পরিত্রাণ পেতে সাবানও ব্যবহার করতে পারেন। পানিতে সাবান গুলিয়ে তেলাপোকার গায়ে ছিটিয়ে দিতে পারেন। এতে বেশির ভাগ তেলাপোকাই দ্রুত মরে যাবে। এরা যেসব স্থানে বসবাস করে সেখানেও মিশ্রণটি ছিটিয়ে দিতে পারেন। দেখবেন তেলাপোকা এক নিমিষে দূর হয়ে গেছে।

এমোনিয়া:

এক বালতি পানির মধ্যে দুই কাপ এমোনিয়া মিশিয়ে রান্না ঘরের সিংক এবং বাথরুমে ছিটিয়ে দিন। অ্যামোনিয়ার গন্ধে তেলাপোকা চলে যাবে। তেলাপোকা মুক্ত ঘর রাখতে সপ্তাহে এক বা দুইবার এটা করতে পারেন।

Share