চুলের যত্নে জবা ফুল ও পাতা।

চুলের যত্নে জবা ফুলের ব্যবহার চলে আসছে সেই প্রাচীনকাল থেকেই। চুল পড়া থেকে শুরু করে চুল ভেঙে যাওয়া প্রতিরোধে এটি নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারেন। জবা ফুলে থাকা ভিটামিন “সি”, ভিটামিন “এ” এবং অ্যামিনো অ্যাসিড চুল পড়া বন্ধ করে ও চুল ঝলমলে করে।

এছাড়া চুলের বৃদ্ধিতে এর জুড়ি নেই। প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসেবে জবা ফুল নরম করে চুল। এমনকি জবার পাতাও ব্যবহার করা যায়।

চুল পাকা রোধে জবা ফুলের বিকল্প নেই। এতে আছে আলফা হাইড্রক্সি এসিডস, জবা ফুলে রয়েছে ম্যাঙ্গানিজ, আয়রন, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম যা আপনার চুলকে দেয় পর্যাপ্ত পুষ্টিগুণ ও চুল রাখে ঝলমলে, কালো ও সুন্দর।

<>আসুন এবার জেনে নেওয়া যাক, চুলের যত্নে জবা ফুল কি কি উপকার করে থাকে-

চুল দ্রুত বৃদ্ধি করে:

জবা ফুলের মধ্যে অ্যামিনো অ্যাসিড উপাদান আছে। নারকেল এবং জবা ফুলের তেল চুলের গোড়ায় পুষ্টি যোগায় এবং নতুন চুল গজাতে সহায়তা করে। পাশাপাশি মাথার তালুতে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে।

প্রথমে ৮ থেকে ৯টি জবা ফুল ও পাতা নিয়ে ভালো করে ধুয়ে তা থেঁতলে করে নিন। এরপর একটি পাত্রে এক কাপ নারিকেল তেল নিয়ে তাতে জবা ফুলের পেস্ট দিয়েভালো করে মিশিয়ে চুল ও মাথার তালুতে ম্যাসাজ করে নিন। ৩০ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। এটি চুলকে দ্রুত বৃদ্ধির পাশাপাশি কোমল ও পুষ্টি জোগাতে সাহায্য করে।

botanical hibiscus

নতুন চুল গোজাতে সাহায্য করে:

একটি জবা ফুল এবং তিন চারটি জবা ফুলের পাতা পেস্ট তৈরি করে নিন। তারপর চুলে ব্যবহার করুন। এক ঘন্টা অপেক্ষা করুন। এক ঘন্টা পর পানি দিয়ে চুল শ্যাম্পু করে ফেলুন। এটি চুলের গোড়া মজবুত করে নতুন চুল গোজাতে সাহায্য করবে।

চুল মজবুত করে:

জবা ফুল অ্যামিনো অ্যাসিড সমৃদ্ধ যা চুলের গোড়া শক্ত করে এবং চুল ময়শ্চারাইজিং করে তোলে। ৪-৫ টা জবা ফুলের পাতা, ১ টা জবা ফুল ভালো করে একসাথে পেস্ট করে চুলে লাগান। এক ঘণ্টা রেখে চুল ধুয়ে নিন। চুলের গোঁড়া মজবুত করতে ও বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

খুশকি দূর করে:

খুশকির শ্যাম্পু লাগিয়েও সমস্যা থেকেই যাচ্ছে। তাহলে প্রাকৃতিক উপাদান জবা ফুল এর হেয়ার প্যাক নিতে পারেন। এক টেবিল চামচ মেথি বীজ সারারাত ভিজিয়ে রাখুন। শুকনো জবা পাতা ও মেথি বীজ একসঙ্গে বেটে মেশান। এই পেস্টটি মাথার তালুতে লাগিয়ে খুশকিকে বিদায় জানান। এছাড়া জবা পাতা ও মেহেদি পাতা একসাথে গুঁড়া করে তাতে অর্ধেক লেবুর রস দিয়ে চুলে লাগান।

স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুল পেতে:

তিন টেবিল চামচ আমলা পাউডার নিয়ে তাতে তিন টেবিল চামচ জবা গাছের পাতার গুঁড়া ও পেস্ট কর৩-৪ টি জবা ফুল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন। এক্ষেত্রে আমলার রসও ব্যবহার করতে পারেন। প্যাক লাগিয়ে ৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন এবং ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত ব্যবহারে এই প্যাক স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুল পেতে সাহায্য করবে।

hibisco red

চুল পড়া রোধ করে:

চুল পড়া রোধ করতে জবা ফুল খুবই উপকারী। জবা ফুলের তেল চুল শক্ত ও মজবুত করে তুলতে সাহায্য করে। যে কোন রঙের ৪-৫টি জবা ফুল এবং ১০০ গ্রাম নারিকেল তেল নিয়ে একটি কড়াইতে ১০-১৫ মিনিটের মতো এটি জ্বাল দিয়ে নিন। এবার এ তেলটি চুলে সপ্তাহে ২-৩ বার ব্যবহার করুন রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে।

চুলকে কন্ডিশনিং করে:

কয়েকটি জবা ফুল থেঁতলে নিয়ে প্রয়োজনীয় পানি ব্যবহার করে পেস্ট তৈরি করুন। চুল ও মাথার তালুতে লাগিয়ে এক ঘণ্টা অপেক্ষা করুন। এরপর পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। চুলের গোঁড়া থেকে পুষ্টি জুগিয়ে চুলকে করে তুলবে আরো উজ্জ্বল ও ঝলমলে।

ময়শ্চারাইজার হিসাবে:

৩-৪ টি জবা ফুল, এক মুঠো জবা ফুলের পাতা এবং এক মুঠো মেহেদি পাতা একসাথে বেটে পেস্ট তৈরি করুন। এরসাথে অর্ধেকটা লেবুর রস দিয়ে দিন। এই প্যাকটি সম্পূর্ণ চুলে ব্যবহার করুন। এক ঘণ্টা অপেক্ষা করুন। এক ঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে ফেলুন।

চুল ঘন করে:

৩ টি জবা ফুল, ২ টেবিল চামচ জবা ফুলের পাতার গুঁড়ো এবং ৩ টেবিল চামচ আমলকীর গুঁড়ো পানির সাথে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্টটি মাথার তালুসহ সম্পূর্ণ চুলে ব্যবহার করুন। ৪০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। ভালো ফল পেতে সপ্তাহে একবার ব্যবহার করুন।