মিষ্টি বা ডেসার্ট কালোজাম শক্তির ভান্ডার, ওজন বাড়ায় ও খুবই লোভনীয়।

বাঙালি খাবার হল বাংলাদেশ তথা উপমহাদেশের পূর্ব অংশ এবং ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য, ত্রিপুরা এবং আসামের বরাক উপত্যকার বাংলা অঞ্চলের রন্ধনশৈলী। প্রধান খাবার হিসাবে ভাত দিয়ে মাছ, শাকসবজি এবং ডালের উপরে জোর দেওয়া হয়।

বারো মাসে তেরো পার্বণ। তাই বাঙালি খাদ্য ঐতিহ্য সামাজিক কার্যকলাপগুলি থেকে শুরু করে বাঙালি সংস্কৃতির সাথে জড়িত। বিভিন্ন ঋতুতে, বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠানে মিষ্টান্ন বা মিষ্টি জাতীয় খাবার তৈরি ও পরিবেশনের জন্য বাঙালি সমাজ হাজার বছর ধরে সমাদৃত।

ভারতীয় উপমহাদেশে প্রাচীন এই বঙ্গদেশ সুদূর প্রাচীনকাল থেকে বর্তমান আধুনিক স্টাইলের ফ্যাশনাল রান্নার শৈলীতে একেবারে সমান যোগ্য।

বাইরের দেশের লোকেরা অর্থাৎ বিদেশিরা এদেশের খাবারের প্রেমে পড়ে বাংলাদেশী খাবারের অনেক গুণকীর্তন করে গেছেন। খাবারের স্বাদ এতো ভালো লেগেছে বা স্বাদ ভুলতে না পেরে বাংলাদেশে রয়ে গেছেন।

তেমন অনেক খাবারের মধ্যে মিষ্টি বা ডেসার্ট জাতীয় একটি খাবার হলো কালোজাম বা হিন্দিতে গোলাবজামুন।

ডায়াবেটিস রোগী কি কালোজাম বা গোলাবজামুন খেতে পারবেন?

না, ডায়াবেটিস রোগী কালোজাম খেতে পারবেন না। এতে ক্যালোরি ও ফ্যাট বেশি থাকে। এটি দ্রুত রক্তে শর্করা বাড়িয়ে তোলে। এছাড়া এটি ওজন বাড়িয়ে দেবে দ্রুত।

জেনে নিন কালোজামের উপকারীতা ও অপকারীতা সম্পর্কে:

শক্তির ভান্ডার:

তবে একটি কালোজাম বা গুলাব জামুনে প্রায় ১২৫ ক্যালোরি থাকে। যার মধ্যে কার্বোহাইড্রেটগুলি ৯০ ক্যালোরিযুক্ত, প্রোটিন ৯ ক্যালোরিযুক্ত এবং বাকী ২৫ ক্যালোরিগুলি ক্যালরিযুক্ত ফ্যাট থেকে আসে।একটি গুলাব জামুন ২,০০০ ক্যালোরির একটি প্রাপ্ত বয়স্ক লোকের ডায়েটের মোট দৈনিক ক্যালোরির প্রয়োজনের প্রায় ৬ শতাংশ সরবরাহ করে।

ওজন বাড়ায়:

ওজন বাড়াতে ওস্তাদ। বাচ্চারা কালোজাম খেতে খুব পছন্দ করে। তাদের বাড়ন্ত শরীরে এটি দ্রুত শক্তি যোগায়। বাচ্চাদের জন্য খুব উপকারী এই কালোজাম। বয়স্কদের ক্ষেত্রে, কালোজাম অর্থাৎ মিষ্টি খাবেন আর ওজন বাড়বে না এটা কি আর বলা লাগে। তবে পরিমিত পরিমানে খাবেন।

লোভনীয় কিন্তু রক্তে শর্করা বাড়ায়:

চিনি, ময়দা, তেল বা ঘি। কালোজাম তৈরির প্রধান উপকরণ। শিশু, কিশোর, তরুণ সবাই খেতে পারে। বৈশাখের মেলা, রাথের মেলা পূজা-পার্বণ, ঈদের মেলা  বা পাড়ার মোড়ের মিষ্টির দোকান কালোজাম দেখলে মাথা ঠিক থাকে না। কিশোরে, তরুণ, যুবক পাল্লা দিয়ে বা বাজি ধরে কালোজাম খেয়ে থাকে। ৫টা, ১০টা থেকে শুরু করে কেউ কেউ ২৫টা, ৩০টাও খেয়ে ফেলে।

যাদের ডায়াবেটিস ও হার্ট-এর সমস্যা রয়েছে তারা আপনার ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী খাবেন। চিনিতে শুধু কার্বোহাইড্রেট থাকে কিন্তু ভিটামিন ও মিনারেলস শুন্য। তাই রক্তে দ্রুত শর্করা বাড়ায়।  ময়দা হলো পরিশোধিত  কার্বোহাইড্রেট যেটিও হার্ট ও ডায়াবেটিস রোগীর জন্য ভালো নয়।

ডুবো তেলে  ভাজা:

যে কোনো খাবারই Deep fried বা ডুবো তেলে ভাজা যাকে বলে, সেটি অনেক রোগের  ক্ষেত্রে ক্ষতিকর।

সতর্কতাঃ

যা কিছু খাবেন পরিমাণমতো খাবেন। আপনার শরীরের অবস্থা বুঝে খাবেন। অতিরিক্ত কোনো কিছুই ভালো নয়।

সূত্রঃ

https://www.tarladalal.com/calories-for-gulab-jamun-2854

 

 

 

 

Share