মানবদেহ সম্পর্কে অজানা তথ্য।

অস্থির আবরনীর নাম = পেরিঅস্টিয়াম।
ফুসফুসের আবরণীর নাম = প্লুরা।
লালাগ্রন্থীর আবরনীর নাম = এপিথেলিয়াম
মস্তিষ্কের আবরণীর নাম = মেনিনজেস
শুক্রাশয়ের আবরনীর নাম = মেসোরকিয়াম
ডিম্বাশয়ের আবরনীর নাম = মেসোভেরিয়াম
পুংজনন গ্রন্থিতে পাওয়া যায় = টেস্টোসটেরন
স্ত্রীজনন গ্রন্থিতে পাওয়া যায় = ইস্ট্রোজেন।
হৃদপিন্ডের আবরনীর নাম = পেরিকার্ডিয়াম।
কিডনির আবরণী নাম = ক্যাপসুল।
যকৃতের আবরনী নাম = পেরিটোনিয়াম।
রক্তে হিমোগ্লোবিন কমে গেলে = রক্ত শুন্যতা সৃষ্টি হয়।
ডায়াবেটিস রোগ হয় = ইনসুলিনের অভাবে।
ডায়াবেটিস রোগির রক্তে বৃদ্ধি পায় = গ্লুকোজ।
মস্তিষ্কের রক্তক্ষরণ ও রক্ত বাধাকে বলে = স্ট্রোক
হিমোসাইটোমিটার যন্ত্রের সাহায্যে = রক্ত কণিকার সংখ্যা নির্ণয় করা যায়
একটি বৃক্কে নেফ্রনের সংখ্যা = প্রায় ১০ লক্ষ
ক্ষুদ্রান্ত্রের দৈর্ঘ্য = ৬ মিটার
মানবদেহে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে = হাইপোথ্যালামাস
রক্ত সংবহন তন্ত্র আবিষ্কার করেন = বনে নাফি।
রক্তের গ্রুপ আবিষ্কার করেন = ল্যান্ড স্টিনার।
মানুষের রেচন অঙ্গ গুলি হলো = ত্বক, ফুসফুস, যকৃত ও বৃক্ক।
প্রধান রেচন অঙ্গ = বৃক্ক প্রায় ৭৫% নিষ্কাষন করে।
বৃক্ক দেখতে অনেকটা = শিমের বীজের মতো
শব্দ দূষনের ফলে সৃষ্টি হয় = উচ্চ রক্তচাপ।
মানুষের মস্তিষ্কের ওজন = ১.৫০ কেজি।
নাড়ীর স্পন্দন প্রবাহিত হয় = ধমণীর মধ্য দিয়ে।
মানুষের লালায় থাকে = টায়ালিন এনজাইম
স্নায়ুতন্ত্রের গাঠনিক একক = নিউরন।
রেচনতন্ত্রের গাঠনিক একক = নেফ্রন।
কংকালতন্ত্রের গাঠনিক একক = অস্থি।
যকৃতের গাঠনিক একক = হেপাটোসাইট।
হৃৎপিন্ড = মানবদেহের প্রাণ।
হিমোগ্লোবিন = রবিন হুড অনু
শ্বেত রক্ত কণিকা = মানব দেহের আণুবীক্ষণিক সৈনিক।
রাইবোসোমকে = প্রোটিন তৈরির কারখানা
অ্যামাইনো অ্যাসিড = প্রোটিন তৈরির কাঁচামাল
RNA = প্রােটিন তৈরীর ব্লু-প্রিন্ট
জিনোম = মাস্টার ব্লুপ্রিন্ট
DNA = মাস্টার মলিকিউল
স্নায়ুতন্ত্রের অবস্থান = মস্তিষ্ক।
মানব মস্তিষ্কের ওজন = 1200-1400 গ্রাম।
মানব মস্তিষ্কের আয়তন = 1450 ঘন সেমি
যকৃত = জীবন-সমুদ্রের কর্মকার পোতাশ্রয়।
অস্থি = রক্ত কণিকা তৈরীর কারখানা
জল = ফ্লুইড অফ লাইফ
ক্রোমোজোম = বংশগতির ভৌত ভিত্তি
হরমোন = দেহের রাসায়নিক বার্তাবাহক।
যকৃত = মানবদেহের ল্যাবরেটরি
বৃক্ককে = মানবদেহের ছাঁকনি যন্ত্র
স্নায়ুতন্ত্রের গঠনগত ও কার্যগত একক = নিউরন।
মানব শরীরের সবচেয়ে বড় কোষ = স্নায়ু কোষ।
প্রলম্বিত অংশ কী কী দ্বারা গঠিত = অ্যাক্সন ও ডেনড্রন
নিউরনে অবস্থিত দীর্ঘ শাখাবিহীন প্রলম্বিত অংশ = অ্যাকশন
স্নায়ু কোষ বিভাজিত না হওয়ার কারণ = সেন্ট্রিওলের অনুপস্থিতি।
নিউরন কী কী অংশ দ্বারা গঠিত = কোশদেহ ও প্রলম্বিত অংশ।
Share