বিভিন্ন দেশের আইন সভার নাম।

বাংলাদেশের আইন সভার নাম = জাতীয় সংসদ।
ভারতের আইন সভার নাম = লোকসভা বা রাজ্যসভা।
ইরানের আইন সভার নাম = মজলিস।
যুক্তরাষ্ট্রের আইন সভার নাম = কংগ্রেস।
যুক্তরাজ্যের আইন সভার নাম = পার্লামেন্ট।
চীনের আইন সভার নাম = কংগ্রেস।
ডেনমার্কের আইন সভার নাম = ফোকেট।
জার্মানির আইন সভার নাম = রাইখস্ট্যাগ।
পাকিস্তানের আইন সভার নাম = জাতীয় পরিষদ বা সিনেট।
জাপানের আইন সভার নাম = ডায়েট।
নেপালের আইন সভার নাম = কংগ্রেস বা পঞ্চায়েত।
আফগানিস্তানের আইন সভার নাম = লয়াজিরগা।
ভুটানের আইন সভার নাম = সোংডু।
মালদ্বীপের আইন সভার নাম = মজলিস।
কানাডার আইন সভার নাম = পার্লামেন্ট।
অস্ট্রেলিয়ার আইন সভার নাম = পার্লামেন্ট।
মালয়েশিয়ার আইন সভার নাম = মজলিস।
মঙ্গোলিয়ার আইন সভার নাম = থুরাল।
ফ্রান্সের আইন সভার নাম = চেম্বার।
নেদারল্যান্ডের আইন সভার নাম = স্ট্যাটেড জেনারেল।
পোলেন্ডের আইন সভার নাম = সীম।
নরওয়ের আইন সভার নাম = স্টরটিং।
ইতালির আইন সভার নাম = সিনেট।
মিশরের আইন সভার নাম = দারুল আওয়াম।
আয়ারল্যান্ডের আইন সভার নাম = ডেল আয়ারম্যূান বা ওয়ারেখটাস।
ইসরাইলের আইন সভার নাম = নেসেট।
তাই্ওয়ানের আইন সভার নাম = উয়ান।
রাশিয়ার আইন সভার নাম = সুপ্রিম সোভিয়েত অ্যাসেম্বলি।
স্পেনের আইন সভার নাম = ক্রেটস।
তুরস্কের আইন সভার নাম = গ্রান্ড ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি।
সুইডেনের আইন সভার নাম = রিক্সড্যাগ।
গ্রিসের আইন সভার নাম = চেম্বার অব ডেপুটিজ।
আইসল্যান্ডের আইন সভার নাম = আলথিং।
ইন্দোনেসিয়ার আইন সভার নাম = পিপল্স কনসাল্টেটিভ অ্যাসেম্বলি।
উত্তর কোরিয়ার আইন সভার নাম = সুপ্রিম পিপল্স অ্যাসেম্বলি।
জায়ারের আইন সভার নাম = ন্যাশনাল লেজিসলেটিভ কাউন্সিল।
রুমানিয়ার আইন সভার নাম = গ্রান্ড ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি।
হাইতির আইন সভার নাম = চেম্বর অব ডেপুটিজ সিনেট।
হাঙ্গেরির আইন মভার নাম = ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলি।
সেসেলসের আইন সভার নাম = পিপল্স কাউন্সিল
দক্ষিণ আফ্রিকার আইন সভার নাম = হাউজ অব অ্যাসেম্বলি।
নিইজিল্যান্ডের আইন সভার নাম = হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভ।
মায়ানমারের আইন সভার নাম = পিথু ইটার্ড।
লিথুনিয়ার আইন সভার নাম = সিসাম।
লিবিয়ার আইন সভার নাম = জেনারেল পিপল্স কংগ্রেস।
সিরিয়ার আইন সভার নাম = পিপল্স কাউন্সিল।
Share