টপ এবং জনপ্রিয় প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ কোনগুলো?

প্রোগ্রামিং ভাষা হচ্ছে এক ধরনের ভাষা যা কোন যন্ত্রের আচরণ নিয়ন্ত্রণের জন্য ব্যবহার করা হয়। তথ্য প্রক্রিয়াকরণে এবং অ্যালগরিদম সমূহ নির্ভুলভাবে প্রকাশ করতে প্রোগ্রামিং ভাষা ব্যবহার করা হয়।

এ পর্যন্ত অনেক প্রোগ্রামিং ভাষা সৃষ্টি করা হয়েছে এবং প্রতি বছরই নতুন নতুন প্রোগ্রামিং ভাষা উদ্ভাবন করা হচ্ছে।

১. জাভাস্ক্রিপ্ট (JavaScript) :

জাভাস্ক্রিপ্ট ইন্টারনেটে ব্যবহৃত সবচেয়ে জনপ্রিয় স্ক্রিপ্টিং ল্যাঙ্গুয়েজ। জাভাস্ক্রিপ্ট হল একটি ক্লায়েন্ট সাইড স্ক্রিপ্টিং বা ব্রাউজার স্ক্রিপ্টিং ল্যাংগুয়েজ। জাভাস্ক্রিপ্ট (সংক্ষেপে JS বলা হয়) একটি প্রোটোটাইপ ভিত্তিক স্ক্রিপ্টিং ল্যাংগুয়েজ।

জাভাস্ক্রিপ্ট একটি অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড, ডায়নামিক প্রোগ্রামিং ভাষা। এতে আছে ডেটা টাইপ, অপারেটর, গুরুত্বপূর্ণ কিছু অবজেক্ট আর ফাংশন বা মেথড। জাভা আর সি প্রোগ্রামিং ভাষা থেকে বেশ কিছু সিনট্যাক্স ধার করে নেওয়ায় যারা এসব ভাষায় পারদর্শী তাদের জন্য এটি শেখা তুলনামূলকভাবে সহজ।

২. পাইথন (Python) :

গুইডো ফন রুজাম ১৯৯১ সালে পাইথন প্রোগ্রামিং ভাষা তৈরি করেন। পাইথন একটি অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং ভাষা হলেও সি+‍+ কিংবা জাভার তুলনায় বেশ সহজ। সুন্দর, সহজবোধ্য ও সাবলীল ভাষা হিসেবে পাইথনের সুনাম রয়েছে। এটি শেখা যেহেতু তুলনামূলক সহজ, তাই বর্তমানে অনেক প্রতিষ্ঠানেই প্রথম প্রোগ্রামিং ভাষা হিসেবে পাইথন শেখানো হয়।

এটি ওয়েবের জগতে যেমন জনপ্রিয়, তেমনি মেশিন লার্নিং ও ডেটা অ্যানালাইসিসের জন্যও বহুল ব্যবহৃত প্রোগ্রামিং ভাষা। তাই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, গবেষণা প্রতিষ্ঠান, সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠান—সব জায়গাতেই পাইথনের ব্যবহার বাড়ছে।

৩. জাভা (Java) :

১৯৯৫ সালে জাভা প্রোগ্রামিং ভাষা তৈরি করেন জেমস গসলিং। এটি একটি অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং ভাষা। ডেস্কটপ ও ওয়েবভিত্তিক সফটওয়্যার তৈরিতে জাভা দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। জাভা’র এই জনপ্রিয়তার মুল কারণ এর বহনযোগ্যতা (portability), নিরাপত্তা, এবং অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং ও ওয়েব প্রোগ্রামিং এর প্রতি পরিপূর্ণ সাপোর্ট।

জাভা দিয়ে তৈরি সফটওয়্যার নানা রকম অপারেটিং সিস্টেমে চালানো যেত। শুরুর দিকে জাভা বেশ ধীরগতির প্রোগ্রামিং ভাষা বলে বিবেচিত হলেও ধারাবাহিক উন্নয়নের ফলে এখন এটি অত্যন্ত কার্যকর ও শক্তিশালী এক ভাষা হিসেবে জনপ্রিয়। অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের জন্য নেটিভ সফটওয়্যার ( নির্দিষ্ট অপারেটিং সিস্টেম বা যন্ত্রের জন্য তৈরি প্রোগ্রাম ) তৈরি করতেও জাভাকে বেছে নেওয়া হয়েছে।

৪. পিএইচপি (PHP) :

১৯৯৫ সালে রাসমুস লেৰ্ডর্ফ  পিএইচপি প্রোগ্রামিং ভাষা তৈরি করেন। এ ভাষাটি তৈরি করা হয়েছে সি প্রোগ্রামিং ভাষা ব্যবহার করে। ওয়েব প্রোগ্রামিং অনেকটাই সহজ করে দেয় পিএইচপি। পিএইচপি হচ্ছে একটি স্ক্রিপ্টিং ভাষা যা মূলতঃ চলমান ওয়েব পাতা তৈরির জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। ইহা কমান্ড লাইন ইন্টারফেস ক্ষমতাকে অন্তর্ভুক্ত করেছে এবং স্ট্যান্ডআলোন গ্রাফিক্যাল আপ্লিকেশনকে ব্যবহার করতে পারে।

এ ভাষাটি নিজে যেমন জনপ্রিয়তা অর্জন করে, তেমনি ওয়েব প্রোগ্রামিংকে আরও বেশিসংখ্যক মানুষের কাছে নিয়ে যায়। ওয়ার্ডপ্রেস, জুমলা, দ্রুপাল-এর মতো জনপ্রিয় সব সফটওয়্যার পিএইচপি দিয়ে তৈরি। পিএইচপি বেশীর ভাগ ওয়েব সার্ভারে প্রয়োগ করা যায় এবং প্রায় সকল অপারেটিং সিস্টেম ও অবস্থান ভেদে বিনামূল্যে ব্যবহার করা যায়। ২০ মিলিয়নেরও বেশি ওয়েবসাইট ও ১ মিলিয়ন ওয়েব সার্ভারে পিএইচপি ব্যবহৃত হচ্ছে।

৫. সি++ (C++) :

সি++ একটি অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং ভাষা। ১৯৮০ সালে বিয়ারনে স্ট্রোভস্ট্রুপ(Bjarne Stroustrup) যুক্তরাষ্ট্রের এটিএন্ডটি বেল ল্যাবরেটরীতে (AT&T Bell Laboratory) এটি ডেভেলপ করেন। মূলত সিমুলা-৬৭ এবং সি প্রোগ্রামিং ভাষার সুবিধাজনক বৈশিষ্ট্যগুলোর সমন্বয় সাধন করে সি++ তৈরি হয়।

এটি সর্বকালের অন্যতম জনপ্রিয় প্রোগ্রামিং ভাষা এবং সফটওয়্যার  শিল্পে এটি বহুল ব্যবহৃত হয়। যেমন- সিস্টেম সফটওয়্যার, অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার, ডিভাইস ড্রাইভার, এম্বেডেড সফটওয়্যার, উচ্চ মানের সার্ভার ও ক্লায়েন্ট অ্যাপ্লিকেশন, বিনোদন সফটওয়্যার যেমন- ভিডিও গেম ইত্যাদি ক্ষেত্রে সি++ ব্যবহৃত হচ্ছে।

Share