জলপরী ও কাঠুরের গল্প।

অনেক কাল আগের কথা। একটি গ্রামে এক গরীব কাঠুরে বাস করতো। তার একটি লোহার কুটার ছিল। প্রতিদিন সে নদীর ধারে গাছ থেকে কাঠ কাটতো এবং সেই কাঠ বাজারে বিক্রি করে সে তার সংসার চালাতো। হঠাৎ একদিন কাঠ কাটার সময় তার লোহার কুঠারটি নদীতে পরে গেলো। অনেক খুঁজে ও সে তার কুঠারটি পেল না।

সে নদীর ধারে বসে কাঁদতে লাগলো। এমন সময় জলের ভেতর থেকে এক জলপরী উঠে এলো। এবং কাঠুরের কাছ থেকে সব ঘটনাটি শুনলো আর শোনার পর তাকে বললো তুমি কেঁদো না আমি তোমার কুঠারটি খুঁজে এনে  দিচ্ছি। এই বলে সে নদীতে ডুব দিলো। কিছুক্ষণ পর সে জল থেকে উঠে এলো আর একটি সোনার কুঠার নিয়ে এলো।

কাঠুরে সোনার কুঠারটি দেখে বললো এটি আমার কুঠার নয়। এই শুনে জলপরী আবারো নদীতে ডুব দিলো। আর একটি রুপার কুঠার নিয়ে এলো এটি দেখেও কাঠুরে বললো এটা আমার নয়। ঠিক আগের মত জলপরী একটি কুঠার নিয়ে এলো, কাঠুরে কুঠারটি দেখে বললো এটিই তো আমার সেই লোহার কুঠার।

কাঠুরে তার লোহার কুঠারটি পেয়ে খুব খুশি হল। কিন্তু জলপরী তার সততা দেখে কাঠুরের লোহার কুঠারটি সহ বাকি সোনা ও রুপার কুঠারটি ও দিয়ে দিল। তারপর কাঠুরের সুখে শান্তিতে দিন কাটতে লাগলো।

Share