স্কীন ক্যান্সারের লক্ষণ ও স্কীন ক্যান্সার কেন হয়?

সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মির কারণে ত্বকের ক্যান্সার বা স্কীন ক্যান্সার হয়ে থাকে। স্কীন ক্যান্সার বা চামড়ায় ক্যান্সার হলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বোঝা যায় না। চামড়ার ক্যান্সার এমনই একটি রোগ, যা খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। আর বুঝতে দেরি হলেই পরিস্থিতি খারাপ হয়ে আপনার মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে।

তবে স্কিন ক্যান্সার (skin cancer) যদি প্রথম অবস্থায় নির্নয় করা যায় তাহলে এর চিকিৎসায় সফল হওয়া যায়। তিন ধরণের ত্বকের ক্যান্সার রয়েছে – বেসাল সেল কার্সিনোমা (basal cell carcinoma), স্কোয়ামাস সেল কার্সিনোমা (squamous cell carcinoma) এবং মেলানোমা (melanoma)।

ত্বকের কোন জায়গায় এই ক্যান্সারের বিকাশ ঘটে

ত্বকের ক্যান্সার মূলত স্ক্যাল্প, মুখ, ঠোঁট, কান, ঘাড়, বুক, বাহু এবং হাত এবং মহিলাদের মধ্যে পায়ে। তাছাড়া হাতের তালু, পায়ের নখগুলির নীচে এবং যৌনাঙ্গেও হয়ে থাকে।

স্কীন ক্যান্সার কেন হয়?

অতিরিক্ত রোদে ঘোরাঘুরি, অতিরিক্ত মেকআপ ব্যবহার, নিয়মিত মেডিকেল চেকআপ না করানো, ঘন ঘন ব্লিচ করা ও ব্র্যান্ড ছাড়া কসমেটিকস ব্যবহার করলে ত্বকে এই ক্যান্সার হতে পারে।

স্কীন ক্যান্সারের লক্ষণ কি কি?

  • ত্বকে বিভিন্ন বর্ণের সংমিশ্রণ দেখা দেয় যেমন- বাদামী, কালো, লাল, সাদা, নীল ইত্যাদি।
  • চামড়ার উপরিভাগ খসখসে হয়ে উঠে যেতে পারে এবং অনেক ক্ষেত্রে তরল জাতীয় কিছুর নির্গমন হতে পারে।
  • শরীরের উপরিভগের ত্বকে এডিমা বা তৈলশূন্যতা দেখা দিতে পারে।
  • অস্বাভাবিক অনুভূতি যেমন- চুলকানি, জ্বালা-পোড়া ইত্যাদি অনুভূত হতে পারে।
  • শরীরে তিল বা আঁচিল থাকলে তার দিকে নজর রাখুন। লক্ষ্য রাখুন এর আকার ও রঙে পরিবর্তন দৃশ্যমান হচ্ছে কিনা।
  • লাল, গোলাপী, সাদা রঙের ঘা দেখা যায়।

পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন “ডি” ডায়েট অথবা ভিটামিন সাপ্লিমেন্টারির মাধ্যমে গ্রহণ করতে হবে। শরীরের কোন অংশে নতুন তিল দেখলে কিংবা পুরনো তিলের রঙ, আকার বা অন্য কোন ধরণের পরিবর্তন, ত্বকের কোন অস্বাভাবিকতা লক্ষ করলে দ্রুত ডাক্তারের কাছে যেতে হবে।

কাদের এই ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি বেশী থাকে?

  • যাদের বেশির ভাগ সময় সূর্যের আলোতে থাকতে হয়।
  • যদি অস্বাভাবিকের থেকে বেশি শরীরে তিল থাকে।
  • ত্বকের ক্ষত সহজে যদি না সারে তাহলে ত্বকের ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়।
  • ত্বকের ক্যান্সারের পারিবারিক ইতিহাস থাকলে।
  • দুর্বল প্রতিরোধ ব্যবস্থা। যেসব ব্যক্তিদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল তাদের মধ্যে ত্বকের ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে।
  • যাদের চুল লাল বা সোনালী বর্ণের।
  • দুই নাম্বারি সব মেকাপ ব্যবহারের ফলে
রেফারেন্স: