সরিষা শাক চোখের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো, হার্ট সুস্থ্য রাখে ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।

প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় মাছ মাংসের পাশাপাশি শাক রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। স্বাদে একটু তেতো কিন্তু স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী এই সরিষা শাক। ইংরেজিতে সরিষা শাককে: mustard greens বলা হয়। এর বৈজ্ঞানিক নাম: Brassica juncea.

শীতকালীন শাকটি আমরা চিংড়ি মাছ দিয়ে রান্না করে বা ভাজি করে খেতে পারি। এটি আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেক বাড়িয়ে দেয়।

সরিষা শাক ক্যালসিয়াম, আয়রন, পটাসিয়াম, রাইবোফ্লাভিন (ভিটামিন”বি” ২), ম্যাগনেসিয়াম এবং থায়ামিন (ভিটামিন “বি”১) পাশাপাশি অল্প পরিমাণে কপার,  সেলেনিয়াম,  ফসফরাস, নিয়াসিন, ফোলেট এবং  (ভিটামিন “বি”৩) থাকে।

সরিষা শাকের পুষ্টি উপাদান

  • ক্যালোরি: ১৫
  • প্রোটিন: ২ গ্রাম
  • কার্বস: ৩ গ্রাম
  • ফাইবার: ২ গ্রাম
  • ভিটামিন “এ”: ৯% (DV )
  • ভিটামিন “বি”  (পাইরিডক্সিন): ৬%( DV)
  • ভিটামিন “সি”: ৪৪%(DV )
  • ভিটামিন “ই“: ৪%(DV )
  • ভিটামিন “কে“: ১২০%(DV )
  • কপার :১০%(DV )

সরিষা শাকের স্বাস্থ্য উপকারিতা

সরিষার শাকের স্বাস্থ্য উপকারিতা নিচে আলোচনা করা হলো-

রোগ-প্রতিরোধী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ

অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট  ক্ষতিকারক ফ্রি র‌্যাডিকাল এর  হাত  থেকে আমাদের দেহকে রক্ষা করতে সহায়তা করে। সরিষা শাক ফ্লাভোনয়েডস, বিটা ক্যারোটিন, লুটিন এবং ভিটামিন “সি” এবং” ই” এর উৎস। তাই ডায়েটে সরিষা শাক রাখলে অনেক রোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

ভিটামিন “কে” এর উৎস

কাঁচা এবং রান্না করা সরিষার শাক ভিটামিন “কে” এর ভালো উৎস। প্রতি কাপে ১২০% (DV ) সরবরাহ করে। রক্ত জমাট বাঁধতে ভিটামিন ‘কে’ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এটি হৃৎপিণ্ড এবং হাড়ের স্বাস্থ্যের জন্যও প্রয়োজনীয়।

সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে অপর্যাপ্ত ভিটামিন “কে” মস্তিষ্কের জন্য ক্ষতিকারক এবং আলঝাইমার রোগের ঝুঁকির সাথে যুক্ত হতে পারে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে

সরিষার শাক আপনার রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে পারে। মাত্র এক কাপ সরিষা শাক প্রতিদিন আমাদের শরীরে যতটা  ভিটামিন “সি” প্রয়োজন তার এক তৃতীয়াংশের চেয়ে বেশি পূরণ করতে পারে। ভিটামিন “সি” রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করার জন্য প্রয়োজন।

হার্টের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো

সরিষা শাক হার্টের জন্য উপকারী কারণ এতে ফ্ল্যাভোনয়েডস এবং বিটা ক্যারোটিনের মতো অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে যা হার্টের রোগের ঝুঁকি কমায়।

চোখের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো

সরিষা শাকে থাকা অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টগুলির মধ্যে লুটেইন এবং জেক্সানথিন রয়েছে, যা চোখের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। বিশেষত, এই দুটি যৌগ আপনার রেটিনাটিকে অক্সিডেটিভ ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে। পরামর্শ দেয় যে লুটিন এবং জেক্সানথিন সমৃদ্ধ খাবারগুলি বয়সের সাথে সম্পর্কিত ম্যাকুলার অবক্ষয় থেকে রক্ষা করতে পারে।

এন্টিক্যান্সার প্রভাব থাকতে পারে

সরিষার শাকে গ্লুকোসিনোলেটস (glucosinolates ) নামে একধরণের উপকারী উদ্ভিদ যৌগ রয়েছে। যার অ্যান্টিক্যান্সার প্রভাব থাকতে পারে। টেস্ট-টিউব স্টাডিতে, গ্লুকোসিনোলেটস কোষকে ডিএনএর ক্ষতির বিরুদ্ধে রক্ষা করতে এবং ক্যান্সারজনিত কোষগুলির বৃদ্ধি রোধে সহায়তা করে।

একটি টেস্ট-টিউব সমীক্ষায় দেখা গেছে সরিষার পাতার রস কোলন এবং ফুসফুস ক্যান্সারের বিরুদ্ধে করতে পারে।

রেফারেন্স:

Share