যৌনজীবনে ডার্ক চকলেটের উপকারিতা। চকোলেটের কালো রংয়ের সিক্রেট।

চকোলেট প্রেমীদের জন্য দুর্দান্ত খবর। কোকো রক্ত প্রবাহকে বাড়িয়ে তোলে যা যৌনতার সময় উত্তেজনায় সহায়তা করে। এছাড়াও চকলেট মস্তিস্কে সেরোটোনিন এবং ডোপামিন রাসায়নিক বৃদ্ধি করে ভালো অনুভূতি সৃষ্টি করে।

বর্তমান দিন এবং যুগে স্ট্রেস এবং উদ্বেগ আমাদের দেহ ও মনকে গ্রাস করেছে। এবং এর প্রভাবগুলি ভয়ঙ্কর। তাদের মধ্যে একটি বয়স এবং লিঙ্গ নির্বিশেষে কম যৌন ড্রাইভ। গবেষণায় দেখা গেছে যে প্রায় ৫০% মহিলা যৌন অতৃপ্ততায় ভোগেন, যার মধ্যে প্রচণ্ড উত্তেজনা করতে না পারা অন্তর্ভুক্ত।

পুরুষদের এক পঞ্চমাংশ লোকও তাদের লিবিডো সম্পর্কিত সমস্যার মুখোমুখি হয় যা তাদের সম্পর্কের উপর প্রভাব ফেলে এবং তাই এটি একটি গুরুতর উদ্বেগ।

ভাগ্যক্রমে আমাদের জন্য, এমন কিছু উপায় এবং উপায় রয়েছে যার মাধ্যমে আমাদের যৌন স্বাস্থ্যের সাথে সম্পর্কিত এই সমস্যাগুলি নিয়ন্ত্রণ করা যায়।

ডার্ক চকোলেট এমন একটি খাদ্য আইটেম যা সামগ্রিক যৌন স্বাস্থ্যের জন্য দুর্দান্ত কারণ এটি ডোপামিনের মাত্রা বৃদ্ধি করে। আর ডোপামিন মস্তিষ্কের আনন্দ এলাকাগুলিতে প্রভাবিত করে এমন একটি রাসায়নিক।

জার্নাল অফ প্রোটিমে প্রকাশিত গবেষণা অনুসারে, ১৪ দিনের জন্য প্রতিদিন ৪০গ্রাম ডার্ক চকোলেট খাওয়া আমাদের দেহের স্ট্রেস হরমোন করটিসলের মাত্রা হ্রাস করতে পারে। এটি রক্তচাপ কমাতেও সহায়তা করে।

আপনি যদি মনে করেন চকোলেট স্বর্গীয়, আপনি ভুল বলেননি। চকোলেট আক্ষরিক অর্থে দেবতাদের খাদ্য। এর বোটানিকাল নাম (Theobroma cacao L.) থিওব্রোমা কাকাও।

chocolateblack

চকোলেট কখন আবিষ্কার হয়েছিল?

উত্তর: চকোলেট আগের শতাব্দীর। মায়ানরা পণ্য হিসাবে চকোলেট তৈরি করা মূল্যবান কোকো শিমের ব্যবসা করত। ১৫১৯ সালে, অ্যাজটেকগুলি আবিষ্কার করেছিল যে, তারা কোকো পাউডার এবং মিষ্টিদ্রব্য যোগ করে একটি সুস্বাদু পানীয় তৈরি করতে পারে।  আঠারো শতকের শেষদিকে দুধ চিনির সাথে চকোলেট মিশ্রিত করে চকোলেট বার তৈরি করা হয়।

চকোলেট কি আসলেই অ্যাপ্রোডিসিয়াক বা কামোদ্দীপক?

এর পক্ষে বৈজ্ঞানিক প্রমান রয়েছে। চকোলেটে ফিনাইলিথিলামাইন এবং সেরোটোনিন রাসায়নিক রয়েছে যা মুড বুস্টার এবং যৌন উত্তেজক হিসাবে কাজ করে। চকোলেট খাওয়া আপনাকে সুন্দর বোধ করায়, এমনকি আনন্দদায়ক করে তোলে।

কিন্তু চকোলেটের এফ্রোডিসিয়াক গুণগুলি যৌন উত্তেজক তো বটে তবে আপনার মুখে এটি যেভাবে গলে যায় তার কামুক আনন্দ থেকে কোনো অংশে কম নয়।

অ্যাজটেকরা চকোলেটকে একটি রাজকীয় অ্যাফ্রোডিসিয়াক হিসাবে বিবেচনা করেছিল। মায়েরা এটিকে তাদের উর্বরতা দেবতার সাথে যুক্ত করেছিল। তবে আজ অতটা মনে না করলেও আধুনিক প্রেম ভালোবাসার সংযোগে চকলেট সেতুবন্ধন হিসাবে কাজ করে।

চকোলেটের কালো রংয়ের সিক্রেট:

ধর্মীয় অমৃত থেকে প্রেমিক প্রেমিকার ভালোবাসার প্রতীক থেকে স্বাস্থ্যকর খাদ্য।  চকোলেট সম্পর্কে নতুন সত্য।

চকোলেটের কালো রংয়ের সিক্রেট বা রহস্য অর্থাৎ কোকো বীজ থেকে উৎপন্ন কালো রংয়ের কোকো পাউডার। এই কালো রং বা পাউডারের মধ্যে লুকিয়ে রয়েছে প্রোটিন, ফাইবার, আইরন, কপার ও কয়েকটি শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট।

গবেষণায় দেখা গেছে যে, ডার্ক চকোলেট যখন স্বাস্থ্যকর জীবনযাত্রার অংশ হয়, তখন এটি হার্টের স্বাস্থ্য, রক্তচাপকে উন্নত করতে পারে, এলডিএলকে “খারাপ” কোলেস্টেরল হ্রাস করতে পারে এবং মস্তিষ্কে রক্ত প্রবাহ বাড়িয়ে তুলতে পারে। এটি রক্তে সুগার এবং ইনসুলিন সংবেদনশীলতা উন্নত করতে পারে, ডায়াবেটিসের ঝুঁকি হ্রাস করে।

মস্তিষ্কের কার্যকারিতা উন্নত করতে পারে:

চকোলেটের স্বাস্থ্য উপকারগুলি ফ্ল্যাভোনয়েডস থেকে পাওয়া যায়, যা কাকো বিনের মধ্যে পাওয়া এক ধরণের ফাইটোকেমিক্যাল।

ডার্ক চকোলেট মস্তিষ্কের কার্যকারিতা উন্নত করতে পারে। এক সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, পাঁচ দিনের জন্য উচ্চ-ফ্ল্যাভানল যুক্ত ডার্ক চকলেট খাওয়া ফলে মস্তিস্কে রক্ত প্রবাহকে উন্নত হয়। বয়স্ক ব্যক্তিদের মধ্যে ডার্ক চকলেটে থাকা কোকো পাউডার স্নরণশক্তি উল্লেখযোগ্যভাবে উন্নতি করতে পারে।

হার্ট ভালো রাখে:

যারা নিয়মিত ডার্ক চকলেট খান তাদের হার্ট অন্যদের তুলনায় অনেক ভালো থাকে। ডার্ক চকলেট উচ্চ রক্তচাপ কমিয়ে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক করে, যেটি হার্ট সুস্থ্য রাখতে সহায়ক ভূমিকা রাখে।

৪৭০ জন পুরুষদের একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে, কোকো পাউডার ১৫ বছরের সময়কালে ৫০% হার্টের অসুখের ঝুঁকি হ্রাস করে। অন্য একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে, প্রতি সপ্তাহে ৫ বারের বেশি ডার্ক চকোলেট খাওয়া ফলে হার্টের রোগের ঝুঁকি ৫৭% হ্রাস পায়।

ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি কমায়:

ডার্ক চকোলেট পলিফেনল, ফ্ল্যাভানলস এবং কেটেকিনস নামক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ। অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট ফ্রি র‌্যাডিকেল এবং অক্সিডেটিভ স্ট্রেস প্রতিরোধ করে।
যার ফলে আমাদের শরীরে ক্যান্সার সেল জন্ম নেওয়া অনেকাংশে কমে যায়।

রক্তচাপ কমায়:

ডার্ক চকোলেটের ফ্ল্যাভ্যানল শরীরে নাইট্রিক অক্সাইড উৎপাদন করে। নাইট্রিক অক্সাইডের ফলে রক্তনালীগুলি প্রশস্ত হয়, যা রক্ত প্রবাহকে উন্নত করে এবং রক্তচাপকে হ্রাস করে।

খারাপ কোলেস্টেরল হ্রাস করে:

ডার্ক চকোলেট খাওয়ার ফলে হার্টের রোগের বেশ কয়েকটি ঝুঁকি কমাতে পারে। তার মধ্যে একটি হলো LDL খারাপ কোলেস্টেরল উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস করে এবং HDL ভাল কোলেস্টেরল উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করে।

ত্বকের জন্য ভালো:

চকলেট তৈরির মূল উপাদান কোকোয়া। কোকোয়া বায়োঅ্যাকটিভ যৌগ ফ্ল্যাভোনলে ভরপুর যা ত্বকের জন্য দুর্দান্ত। ফ্ল্যাভোনল সূর্যের ক্ষতির হাত থেকে ত্বকে রক্ষা করতে পারে, ত্বকে রক্ত প্রবাহকে উন্নত করতে পারে এবং ত্বককে হাইড্রেশন করতে পারে।

সতর্কতাঃ

যা খাবেন পরিমিত পরিমানে খাবেন। কারণ প্রয়োজনের অতিরিক্ত কোন কিছু ভালো নয়।

একটি চকোলেট পণ্যে যত বেশি কোকো  তার স্বাস্থ্য-উপকারীতা তত সমৃদ্ধ। ডার্ক চকলেটে কোকোয়ার পরিমাণ ৭০% বা তার বেশি থাকে এবং চিনির পরিমান কম থাকে। আর মিল্ক চকোলেটে দুধ ও চিনির পরিমাণ বেশি।যেহেতু ডার্ক চকলেটে বেশি কোকো রয়েছে, তাই এতে ফাইবার, খনিজ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টও বেশি রয়েছে। ডার্ক চকলেটে যেহেতু কোকো পাউডার বেশি থাকে তাই ডার্ক চকলেট আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য বেশি ভালো।

সূত্রঃ

If you have a low sex drive, try dark chocolate to boost libido

Chocolate’s Dark Secret

Share