ভিটামিন ‘ই’ কি চুলের জন্য ভালো? ভিটামিন ‘ই’ ক্যাপসুল কি চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে?

জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ভালো কিছু অর্জন করা খুব কঠিন। তেমনি সুন্দর চুল পাওয়ার ক্ষেত্রে বাধাও অনেক। কখনো খুশকি, কখনো চুল ওঠা, কখনও ডগাফাটা রুক্ষ চুল, পরিবেশ দূষণের প্রভাব সবকিছু মিলিয়ে একের পর এক সমস্যা লেগেই থাকে।

এ সব সমস্যা সামলানোর অনেক উপায় রয়েছে ঠিকই, কিন্তু আমরা বাঙালিরা চুলের যত্নের ব্যাপারে অনেকটা উদাসীন।

চুল দিয়ে কি হবে? আমি তো আর সিনেমার নায়ক বা নায়িকা নই। তাছাড়া আজকের ব্যস্ত দিনে অত কিছু করার সময় কোথায়। তাহলে শুনুন। আপনাকে বেশি কিছু করতে হবে না।

যদি মাত্র একটা ছোট্ট ক্যাপসুলেই লুকিয়ে থাকে সুস্থ, মজবুত চুলের চাবিকাঠি? তাহলে আজ থেকেই ব্যবহার করতে শুরু করুন ভিটামিন ই ক্যাপসুল আর ছুটি দিন চুলের যাবতীয় সমস্যাকে। একটি স্বাস্থ্যকর মাথার ত্বকের চাবিকাঠি।

ভিটামিন ‘ই’ কি চুলের জন্য ভালো?

ভিটামিন ই স্বাস্থ্যকর চুল এবং মাথার ত্বক বা স্ক্যাল্পের জন্য ভালো। যাদের চুলের স্বাস্থ্য ও ত্বকের স্বাস্থ্য ভালো নয় তারা আপনার ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ভিটামিন ই ক্যাপসুল খেতে পারেন বা নারকেল তেলের সাথে বাহ্যিকভাবে ব্যবহার করতে পারেন।

ভিটামিন ই মাথার ত্বকের স্বাস্থ্য ভালো রাখে এবং আপনার চুলের জারণকে অক্সিডেটিভ স্ট্রেস হ্রাস করে এবং প্রতিরক্ষামূলক লিপিড স্তর সংরক্ষণ করে বেড়ে ওঠার শক্ত ভিত্তি দেয়।

hairgrowth

ভিটামিন ই ক্যাপসুলগুলি কি চুলের বৃদ্ধিতে সহায়তা করতে পারে?

হ্যা, পারে। চুল পাতলা হলে প্রতিদিন একটি ভিটামিন ই ক্যাপসুল নিন। ভিটামিন ই-তে আলফা-টোকোফেরল নামক একটি রাসায়নিক রয়েছে যা মাথার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন উন্নত করতে এবং পিএইচ স্তর, সিবাম উৎপাদনের মধ্যে ভারসাম্য বজায় রাখতে এবং চুলের ফলিকেলগুলিকে পুষ্ট করতে সহায়তা করে যার ফলাফল স্বরূপ স্বাস্থ্যকর চুল ও মাথার ত্বক বা স্ক্যাল্প পাবেন।

প্রতিদিন ভিটামিন ই নেওয়া কি ঠিক?

ক্যাপসুল বা ড্রপগুলিতে ভিটামিন ই মৌখিক পরিপূরক হিসাবেও পাওয়া যায়। ভিটামিন ই এর অভাবে স্নায়ুর ব্যথা (নিউরোপ্যাথি) হতে পারে। বয়স্কদের জন্য প্রতিদিনের ভিটামিন ই এর প্রস্তাবিত পরিমাণ ১৫ মিলিগ্রাম।

সতর্কতাঃ

উচ্চ মাত্রায় ভিটামিন ই গ্রহণ:

থাইরয়েড হরমোন উৎপাদন ব্যাহত করতে পারে।
হাড় দুর্বল।
প্রোস্টেট ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়।
আপনার ডায়েটে ভিটামিন ই পরিপূরক যোগ করার আগে আপনার ডাক্তারের সাথে কথা বলা গুরুত্বপূর্ণ।

যা কিছু খাবেন বা ব্যবহার করবেন পরিমাণমতো করবেন। অতিরিক্ত কোনো কিছুই ভালো নয়। আপনি যদি কোনো জটিল রোগে আক্রান্ত হন বা ডাক্তারের তত্বাবধানে থেকে কোনো ওষুধ গ্রহণ করেন তাহলে খাবার আগে অবশ্যই আপনার ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী খাবেন।

সূত্রঃ

https://www.healthline.com/health/beauty-skin-care/vitamin-e-for-hair