প্রতিদিন কতটুকু ভিটামিন “সি” গ্রহণ করা উচিত? ভিটামিন “সি” অতিরিক্ত গ্রহণের ফলে কি হয়?

ভিটামিন “সি” একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি যা ফল এবং সবজিতে প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বজায় রাখার জন্য ভিটামিন “সি” পর্যাপ্ত পরিমাণে গ্রহণ করা গুরুত্বপূর্ণ। ভিটামিন “সি” ক্ষত নিরাময়ে, হাড়কে শক্তিশালী রাখতে এবং মস্তিষ্কের কার্যকারিতা বৃদ্ধি করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

এছাড়া শরীরকে আয়রন শোষণে সহায়তা করে। আপনার শরীর ভিটামিন “সি” সঞ্চয় করে না বলে প্রতিদিন ডায়েটে ভিটামিন “সি” অন্তর্ভুক্ত করা জরুরী। প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য, প্রতিদিনের ভিটামিন “সি” এর মান ৬৫ থেকে ৯০ মিলিগ্রাম সর্বোচ্চ ২,০০০ মিলিগ্রাম পর্যন্ত।

অত্যধিক ভিটামিন “সি” হজম সমস্যার কারণ হতে পারে

ভিটামিন “সি” একটি জল দ্রবণীয় ভিটামিন, যার অর্থ এটি পানিতে দ্রবীভূত হয়। ভিটামিন “সি” শরীরের তরলের মাধ্যমে টিস্যুতে স্থানান্তরিত হয়। যেহেতু আমাদের দেহ ভিটামিন “সি” সঞ্চয় করে না বা এটি দেহ উৎপাদন করে না তাই প্রতিদিন ভিটামিন “সি” সমৃদ্ধ খাবারগুলি খাওয়া জরুরী।

উচ্চ ভিটামিন “সি” গ্রহণের ফলে হজম জনিত সমস্যা পাশাপাশি ডায়রিয়া এবং বমি বমি ভাব হতে পারে। আপনি একবারে ২,০০০ মিলিগ্রামের বেশি গ্রহণ করলে আপনার হজমের সমস্যা হতে পারে।

উচ্চ মাত্রায় ভিটামিন “সি” পরিপূরক গ্রহণ করলে কিডনিতে পাথর হতে পারে

হ্যাঁ অতিরিক্ত ভিটামিন “সি” বর্জ্যযুক্ত অক্সালেট হিসাবে শরীর থেকে নির্গত হয়। অক্সালেট সাধারণত প্রস্রাবের মাধ্যমে শরীর থেকে বের হয়। যাইহোক, কিছু পরিস্থিতিতে অক্সালেট খনিজগুলির সাথে আবদ্ধ হতে পারে এবং স্ফটিক তৈরি করতে পারে যা কিডনিতে পাথর তৈরি করে।

অত্যধিক ভিটামিন “সি” গ্রহণের ফলে আপনার প্রস্রাবে অক্সালেটের পরিমাণ বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে, ফলে কিডনিতে পাথর হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়।

উচ্চ ভিটামিন “সি” গ্রহণ কেবলমাত্র বেশি পরিমাণে প্রস্রাবের অক্সালেটের সাথে সম্পর্কিত নয় তবে কিডনিতে পাথরগুলির বিকাশের সাথেও জড়িত, বিশেষত যদি আপনি ২,০০০ মিলিগ্রামের চেয়ে বেশি পরিমাণে গ্রহণ করেন।

তাই আমাদের প্রতিদিন ভিটামিন “সি” গ্রহণ ২,০০০ মিলিগ্রাম পর্যন্ত সীমাব্ধ রাখা উচিত।

ভিটামিন “সি” গ্রহণের পরিমাণ?

ভিটামিন “সি” মানবদেহের জন্য প্রয়োজনীয় ভিটামিন। এটি একটি অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট যা রক্তচাপ হ্রাস করে, প্রদাহের বিরুদ্ধে লড়াই এবং কোলাজেন তৈরি সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রক্রিয়াতে সহায়তা করে।

কোনও ব্যক্তির দেহ ভিটামিন “সি” তৈরি করতে পারে না, তাই লোকেরা প্রতিদিনের চাহিদা মেটাতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন “সি” যুক্ত খাবার খাওয়া প্রয়োজন। কারও যদি ভিটামিন “সি” এর ঘাটতির ঝুঁকি থাকে তবে তারা ভিটামিন “সি” পরিপূরক গ্রহণ করতে পারেন।

ধূমপান করে না এমন লোকদের চেয়ে যারা ধূমপান করেন তাদের প্রতিদিন ৩৫ মিলিগ্রাম বেশি ভিটামিন “সি” গ্রহণ করা উচিত। গর্ভাবস্থায় প্রতিদিন ৮০ মিলিগ্রাম বা যখন বুকের দুধ খাওয়ানো মায়েদের ১১৫ মিলিগ্রাম।

কোন বয়সে কতটুকু ভিটামিন “সি” গ্রহণ করা উচিত

  • ১-৩ বছর বয়সী শিশুদের জন্য ৪০০ মিলিগ্রাম
  • ৪-৮ বছর বয়সী বাচ্চাদের ৬৫০ মিলিগ্রাম
  • ৯-১০ বছর বয়সের বাচ্চাদের জন্য ১,২০০ মিলিগ্রাম
  • ১৪-১৮ বছর বয়সের কিশোরদের জন্য ১,৮০০ মিলিগ্রাম

অত্যধিক ভিটামিন “সি” আয়রনের ওভারলোডের কারণ হতে পারে

প্রাপ্তবয়স্কদের একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে, যখন তারা খাবারের সাথে ১০০ মিলিগ্রাম ভিটামিন “সি” গ্রহণ করে তখন আয়রন শোষণ ৬৭% বৃদ্ধি পেয়েছিল।

এই পরিস্থিতিতে অতিরিক্ত পরিমাণে ভিটামিন “সি” গ্রহণের ফলে আয়রন ওভারলোড হতে পারে, যা আপনার হার্ট, লিভার, অগ্ন্যাশয়, থাইরয়েড এবং কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্র এর মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে।

রেফারেন্স:

Share