ডার্ক চকলেট না মিল্ক চকোলেট, কোনটা বেশি স্বাস্থ্যকর?

স্বাস্থ্যকর খাবারের তালিকায় সবসময় ডার্ক চকলেটের নাম থাকবেই। স্বাস্থ্যকর খাবার হিসেবে ডার্ক চকলেটের নাম বেশি উচ্চারিত হলেও মিল্ক চকলেটের জনপ্রিয়তাও কম নয়। তবে চিনির পরিমান বেশি থাকায় অনেকেই মিল্ক চকোলেট এড়িয়ে চলেন।

চকলেট এর মূল উপাদান হচ্ছে কোকোয়া। এটি তিতা স্বাদ দূর করতে এতে দুধ, চিনি যোগ করে চকলেট বানানো হয়। ডার্ক চকলেটে কোকোয়ার পরিমাণ ৭০% বা তার বেশি থাকে এবং চিনির পরিমান কম থাকে। আর মিল্ক চকোলেটে দুধ ও চিনির পরিমাণ বেশি। তাহলে আপনি কোনটা বেছে নেবেন ডার্ক চকলেট না মিল্ক চকোলেট।

ডার্ক চকলেট না মিল্ক চকোলেট?

হ্যাঁ, এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন। প্রথমে বলি কোকো পাউডার। কোকো পাউডার কোকো বীজ থেকে তৈরি যাতে প্রোটিন, ফাইবার, আয়রন এবং ম্যাগনেসিয়ামের মতো গুরুত্বপূর্ণ খনিজ রয়েছে। এছাড়া কোকো পাউডার শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ।

আবার আসি অন্ধকার ডার্ক চকলেট এবং মিল্ক চকলেট উভয়তেই সেই স্বাস্থ্যকর উপাদান রয়েছে যা কোকো পাউডারে আছে। তবে মিল্ক চকলেটে ১০% কোকো পাউডার এবং ডার্ক চকোলেটে কোকো পাউডার রয়েছে ৯০%। আপনি যত বেশি কোকো পাচ্ছেন, তত বেশি স্বাস্থ্য সুবিধা পাবেন।

এর পরে প্রশ্ন আসবে যদি ১০% কোকো পাউডার থাকে তবে বাকি কী? বুঝতে পারছেন কিছু! বাকিটা চিনি এবং দুধ। মিল্ক চকোলেটে চিনি বেশি থাকে, তারপর দুধ এবং চকলেট।

তাই তো মিল্ক চকোলেট বাচ্চাদের দাঁতের জন্য ক্ষতিকর। আর একটি ডার্ক চকলেটে মিল্ক চকোলেটের তুলনায় চিনি এবং দুধ কম থাকে এবং কোকো পাউডারে বেশি থাকে।

যেহেতু ডার্ক চকলেটে বেশি কোকো রয়েছে, তাই এতে ফাইবার, খনিজ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্টও বেশি রয়েছে। কোকো পাউডার উচ্চ রক্তচাপ কমায়, মস্তিষ্কে রক্ত ​​প্রবাহ বৃদ্ধি করে, টাইপ-2 ডায়াবেটিসের লক্ষণ কমায়, হাঁপানিতে আক্রান্ত ব্যক্তিদের সহায়তা করতে পারে ও হার্টের রোগের ঝুঁকি হ্রাস করে। ডার্ক চকলেটে যেহেতু কোকো পাউডার বেশি থাকে তাই ডার্ক চকলেট আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য বেশি ভালো।

রেফারেন্স:

Share