জীবনে সফলতার জন্য নিজের আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি করার কৌশল জেনে নিন।

আত্মবিশ্বাস আমাদের জীবনের একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। আত্মবিশ্বাস যুক্ত ব্যক্তি নিজের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে ইতিবাচক ভাবে চিন্তা করে এবং ব্যক্তিগত ও পেশাগত লক্ষ্য অর্জনের জন্য ঝুঁকি নিতে পারে, যার কারণে সে লক্ষ্য অর্জনে সফল হয়। অপরদিকে যাদের মধ্যে আত্মবিশ্বাসের ঘাটতি রয়েছে তারা নিজের সম্পর্কে নেতিবাচক ভাবে চিন্তা করে যার ফলে তারা লক্ষ্য অর্জনে ব্যর্থ হয়। তবে সুসংবাদটি হল আত্মবিশ্বাস এমন একটি বিষয় যা আপনি উন্নত করতে পারেন। আত্মবিশ্বাস তৈরির জন্য আপনাকে নিজের এবং আপনার সামাজিক ও পারিপার্শ্বিকতা সম্পর্কে একটি ইতিবাচক মনোভাব গড়ে তোলা প্রয়োজন। পাশাপাশি আপনার লক্ষ্য নির্ধারণ এবং ঝুঁকি গ্রহণ করা শিখতে হবে, কারণ চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করার ক্ষমতা আপনার আত্মবিশ্বাসকে বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করবে।  

নেতিবাচক চিন্তা গুলি বর্জন করুন

আত্মবিশ্বাসী হওয়ার জন্য আপনার নেতিবাচক চিন্তা-ভাবনা গুলি থেকে বেরিয়ে আসুন। যেমন আমি এটি করতে পারবো না, আমার দ্বারা এটি হবে না, আমার বক্তব্য কেউ শুনবে না, এই রকম হতাশাযুক্ত চিন্তাভাবনা আত্মবিশ্বাসী হওয়ার ক্ষেত্রে বাধা সৃষ্টি করে।

নেতিবাচক চিন্তা গুলিকে ইতিবাচক করুন

আপনি আপনার নেতিবাচক চিন্তা ভাবনা গুলোকে মনোযোগ দেওয়ার সাথে সাথে সেগুলোকে ইতিবাচক চিন্তায় ঘুরিয়ে ফেলুন। যেমন আমি চেষ্টা করলে এটি করতে পারব, আমার দ্বারা অবশ্যই হবে, লোকেরা আমার কথা শুনবে। একটি ইতিবাচক চিন্তা দিয়ে সবসময় আপনার দিনটি শুরু করতে চেষ্টা করুন।

ভয়কে জয় করুন

আত্মবিশ্বাসী হয়ে জীবনে সফল হতে হলে ভয় কে জয় করতে হবে। কোন কাজ করতে গিয়ে ভয় পেলে চলবে না। আপনি ভাবতে পারেন আত্মবিশ্বাসী লোকেরা কখনো ভয় পায় না। কিন্তু বিষয়টি আসলে তা নয় তারা ভয় কে জয় করে সামনে এগিয়ে যাবার মানসিকতা অর্জন করেছে, এই কারণে তারা সফল। শিশু যখন প্রথম হাঁটা শেখে তখন তার প্রত্যেক পদক্ষেপেই পড়ে যাবার ভয় থাকে কিন্তু সে ভয় কে জয় করে মুখে হাসি নিয়ে হাঁটতে শুরু করে এবং একসময় হাঁটা শিখে যায়। তাই জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ভয় কে জয় করে কাজ করুন দেখবেন আত্মবিশ্বাস আপনার বৃদ্ধি পাবে এবং কাজে সফলতা আসবে।

কাজের ক্ষেত্রে লক্ষ্য নির্ধারণ করুন

যেকোনো কাজ করার সময় নিজের লক্ষ্য নির্ধারণ করুন এবং প্রত্যেক বার যেন নিজেকে ছাড়িয়ে যেতে পারেন এমন লক্ষ্য স্থির করুন। তবে এমন লক্ষ্য নির্ধারণ করবেন না যেটি অবাস্তব বা অসম্ভব। তাই নিজের ক্ষমতা বুঝে লক্ষ্য নির্ধারণ করুন এবং লক্ষ্য অর্জনে যথাযথ পরিশ্রম ও মনোযোগ সহকারে কাজ করুন।

নিজের প্রতিভা চিহ্নিত করুন

আমরা প্রত্যেকেই কোনো না কোনো বিষয়ে ভালো। যেমন কেউ গান, কেউ নাচ, কেউ আবৃত্তি,কেউ লেখা লেখিতে ভালো আবার কেউবা খেলাধুলাতে ভালো। তাই আপনি কোন বিষয় ভালো সেটি আবিষ্কার করুন তারপর আপনার প্রতিভাতে মনোনিবেশ করুন। এবং ভালো কিছু করতে পারলে নিজে গর্ববোধ করুন। দেখবেন আপনি আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠছেন। যে কাজটি আপনি করবেন সেটি আগ্রহের সাথে উপভোগ করে করবেন তাহলে দেখবেন আপনি কাজে সফলতা পাচ্ছেন যেটি আপনার আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধির জন্য খুবই সহায়ক হবে। 

নিজের প্রতি গুরুত্ব দিন

আপনার প্রতিভা বা দক্ষতা নিয়ে কেবল গর্ব বোধ করলে হবে না সেই সাথে আপনার ব্যক্তিত্বের যে বিষয়গুলো আপনাকে আরো আত্মবিশ্বাসী করতে পারে সেই বিষয়ে গুরুত্ব দিন। যেমন আপনার রসবোধ, আপনার মমত্ববোধ, আপনার মানুষের সাথে মানিয়ে চলার ক্ষমতা, আপনার চাপের মধ্যে কাজ করার দক্ষতা, এগুলোকে গুরুত্ব দিন আপনি ভাবতে পারেন যে আপনার ব্যক্তিত্বকে প্রশংসা করার মত কোন কিছু আপনার মধ্যে নাই। তবে আপনি গভীরভাবে চিন্তা করলে বুঝতে পারবেন যে আপনার মধ্যেও প্রচুর প্রশংসনীয় গুণ রয়েছে সেগুলোর প্রতি গুরুত্ব দিন।

আত্মবিশ্বাস একদিনে গড়ে ওঠে না। আপনি নতুন কিছু করতে চেষ্টা করুন আপনার লক্ষ্য স্থির রেখে যথাযথ সময় দিয়ে নিজের মেধা, মনন ও দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে লক্ষ্য অর্জন করুন। দেখবেন ধীরে ধীরে আপনি আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠছেন। যা আপনার জীবনকে সফলতার দিকে নিয়ে যাবে। কিন্তু অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসী হবেন না।

Share