চোখের দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে কোন খাবার গুলো।

আমাদের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ গুলোর মধ্যে চোখ একটি। যেটা ছাড়া আমাদের কাছে পৃথিবীটাই অন্ধকার। বড়দের পাশাপাশি ছোটদেরও হয় চোখের সমস্যা। অল্পবয়সী ছেলে-মেয়েদেরও দেখা যায় মোটা লেন্সের চশমা পরতে। বিশেষ করে শহরে। শহুরে মানুষের দিন কাটে চার দেওয়ালের ভিতের পর্দার আড়ালে। ফলে এদের কাছে সূর্যের আলো পৌঁছায় না। এরা জানেনা সুবুজ মানে কী? এরা শুধু জানে মোবাইলের, ল্যাপটপলের স্কিন সম্পর্কে। ফলে চোখের সমস্যা দিনদিন বেড়েই চলেছে। হ্যাঁ! আরও একটা কারণ আছে সেটা হলো ভেজাল খাদ্য।

সবুজ এই কথাটা মনে করতেই মনের ভিতর যেন এক প্রশান্তি চলে আসে বিশেষ করে শহুরে মানুষের ক্ষেত্রে একথাটা বেশি প্রযোজ্য। মানুষ যেমন পানি ও অক্সিজেন ছাড়া বাঁচতে পারে না ঠিক তেমনি চোখ সবুজ ছাড়া বাঁচতে পারেনা। অনেকের কাছে এটা হাস্যকর হলেও এটাই সত্য।

চোখের দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে যেসব খাবারগুলি:

ছোট মাছ:

চোখের আর একটি গুরুত্বপূর্ণ মহৌষুধ হলো ছোট মাছ। ছোট মাছের পাশাপাশি সামুদ্রিক মাছও খেতে হবে। সামুদ্রিক মাছে থাকা ওমেগা -3 ফ্যাটি অ্যাসিড দৃষ্টিশক্তির উন্নতিতে বা ভালো রাখতে সাহায্য করে।

গাজর:

চোখের জন্য গাজর খুব ভালো একটি সবজি। গাজরে ‘ভিটামিন-এ’ ও বিটা – ক্যারোটিন রয়েছে। ভিটামিন-এ এবং বিটা ক্যারোটিন চোখকে সুস্থ্য রাখতে সাহায্য করে। বিটা ক্যারোটিন অত্যন্ত শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। এটি ছানি পড়া, বয়সের কারণে চোখের জ্যোতি কমে যাওয়া ইত্যাদি সমস্যা প্রতিরোধে সাহায্য করে। গাজর খাওয়ার সুস্থ অভ্যাসের মধ্যে দিয়ে আমরা আমাদের চোখের দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে পারি। এছাড়াও মিষ্টি কুমড়া, মিষ্টি আলু, ব্রকলি ইত্যাদি।

সবুজ শাক:

সবুজ শাক যেমন: কচুশাক, পালংশাক, কলমি শাক, পুইশাক, লাউশাক ইত্যাদিকে অবহেলা করবেন না। সবুজ শাকে রয়েছে প্রচুর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। সেই সাথে এটি ম্যাঙ্গানিজের খুব ভালো উৎস। এগুলো চোখের সমস্যা সমাধানে সাহায্য করে। সূর্যের ক্ষতিকারক অতিবেগুনি রশ্মি থেকে চোখের রেটিনাকে রক্ষা করতে সাহায্য করে সবুজ শাক। দৃষ্টিশক্তি ভালো করতেও সাহায্য করে সবুজ শাক।

টমেটো:

টমেটোতে রয়েছে ভিটামিন-এ, বি, সি, কে, ক্যালসিয়াম, পটাসিয়াম, লাইকোপিন, ক্রোমিয়ামসহ নানা উপাদান। টমেটো যেমন কাঁচা খাওয়া যায়, তেমনি রান্না করেও খাওয়া যায়। সালাদে টমেটো অতুলনীয়। টমেটোতে থাকা লাইকোপিন চোখের রেটিনাকে রক্ষা করতে সাহায্য করে। এটি সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে চোখকে রক্ষা করে।

ডিম:

বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে ডিমও বেশ কার্যকর। বিশেষ করে ডিমের কুসুমে আছে লিউটেইন, জিয়াক্সানথিন এবং জিঙ্ক যা রেটিনায় কোনো ধরনের ক্ষয় প্রতিরোধে বেশ কার্যকর।

বাদাম:

বাদামে আছে ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিড। যা চোখ সংক্রান্ত রোগ কমায়। এতে থাকা ভিটামিন ই চোখে ছানি পড়া এবং ক্ষয় প্রতিরোধ করে।

সাইট্রাস ফল:

লেবু এবং কমলার মতো সাইট্রাস ফল ভিটামিন সি-তে পূর্ণ। যা খুবই শক্তিশালী অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। এই ফল চোখের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভালো। এবং চোখের পেশির ক্ষয়রোধ করে। এছাড়া ভিটামিন সি আমদের দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে।

শুধু খাবার খেয়ে চোখ ভালো রাখা একমাত্র উপায় নয়। অন্য উপায়ে ও আপনি আপনার চোখ সুস্থ্য রাখতে পারেন-

  • মাঝে মাঝে চোখের ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া
  • বাইরে বেরনোর সময় সানগ্লাস পরা
  • ধূমপান এড়ানো
  • একটি স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখা
  • ব্লাড সুগার ঠিক রাখা।
Share