কাঁচামরিচ খান। হাজারো রোগ থেকে বাঁচুন।

শুধু বাংলাদেশ বা পশ্চিমবাংলা নয়, সমগ্র ভারতীয় উপমহাদেশে রান্নায় সর্বাধিক ব্যাবহৃত মশলা হলো মরিচ। অবিশ্বাস্য, যাদুকরী স্বাদ, গন্ধ ও ঝাঁঝের এই কাঁচা মরিচ মুখে নিয়ে একটা কামড় দিলেই মুখের স্বাদগ্রন্থিগুলো এমনভাবে আন্দোলিত হয় যেটা অন্য খাবারে হয় না। প্রতিটি কামড়ে কাঁচা মরিচের মোহনীয় গন্ধ যেমন আমাদের আলোড়িত করে তেমনি প্রতিটি কামড়ে এতো বেশি তরল বা  লালা মুখে নির্গত হয়, তাতে অধিক খাবার খাওয়ার প্রবণতা জাগায়। কাঁচা মরিচ আপনাকে একটা ধারালো ও গরম ভাব প্রদান করে। আমরা বাঙালীরা রান্নায় মোহনীয় স্বাদ, গন্ধ পাওয়ার জন্য কাঁচা মরিচ ব্যবহার করলেও আশ্চর্যজনকভাবে অনেকগুলি অবিশ্বাস্য স্বাস্থ্য বেনিফিট রয়েছে কাঁচা মরিচের।

অনেকেই মশলা বা ঝাঁল জাতীয় খাবার পছন্দ করেন। কেউ কেউ হয়তো একটু কম পছন্দ করেন। যে কম পছন্দ করেন তার রান্না করা খাবারেও কাঁচা মরিচ ছাড়া চলে না। আমরা অনেকেই ভাত খাওয়ার সময় দু-একটা কাঁচা মরিচ এমনিতেই খেয়ে নেই। কিন্তু এটা কি ঠিক ? কাঁচা মরিচ আসলে কতটা উপকারী ?

রান্নাঘরের নিত্যসঙ্গী। যেটা না হলে বাংলাদেশের গিন্নীরা রান্নাই করতে পারেন না। গিন্নীদের দোষ দিয়ে লাভ নেই। এটা না হলে কর্তা- গিন্নি কারোরই খাবার মুখে রোচে না। Solanaceae পরিবারের অন্তর্গত এই উদ্ভিদটি সারাবছর ধরে চাষাবাদ করা যায়।এর সাইন্টিফিক নাম Capsicum annuum .

কাঁচা মরিচ আমরা অনেক পদের ভর্তা বা সালাদে এমনিই খেয়ে থাকি। মরিচের আঁচার বা চিলি সস আমরা বিভিন্ন রকম তেলে ভাঁজার সাথে খেয়ে থাকি। অর্থাৎ কাঁচা মরিচের বহুমুখী ব্যবহার আমাদের বাঙালির রন্ধনশৈলী ও বাংলাদেশী cuisine-এর সাথে অঙ্গাঙ্গিকভাবে জড়িত।

কাঁচামরিচের উপকারিতাঃ

পুষ্টির মধ্যে ধনী :

সবুজ  মরিচে রয়েছেপ্রচুর ভিটামিন সি কন্টেন্ট যা শরীরের জন্য একটি শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। সবুজ মরিচ আমাদের শরীরের কোলাজেন এবং প্রোটিন উদ্দীপিত করতে পারে। রক্তে, টিস্যু, ত্বক এবং হাড়ের জন্য কোলেগেন প্রয়োজন।

কাঁচামরিচে লুইটিন, বিটা-লারোটেন, আলফা-ক্যারোটিন, জ্যাক্যাক্স্থাইন এবং ক্রিপ্টোথাইনের মতো ফ্লাভোনয়েডগুলি ও ভিটামিন  রয়েছে।

শরীরের তাপমাত্রা কমায় :

সবুজ মরিচে ক্যাপসাইসিন পাওয়া যায়। এই উপাদানটি আমাদের মস্তৃষ্কের হাইপোথ্যালামাসের শীতল কেন্দ্রকে উদ্দীপিত করে। এজন্য শরীরের তাপমাত্রা হ্রাস পায়। এখনো যেসব অঞ্চলে গরম বেশি পরে সেসব অঞ্চলের মানুষ শরীর ঠান্ডা রাখার জন্য রান্নায় প্রচুর কাঁচামরিচ ব্যবহার করেন বা কাঁচামরিচ খেয়ে থাকেন।

সর্দি ও শ্লেষ্মা কমায় :

সবুজ মরিচের ক্যাপসাইসিন নাক এবং সাইনাসের শ্লেষ্মা ঝিল্লিতে উদ্দীপক প্রভাব ফেলে। ক্যাপসাইসিন ঝিল্লিগুলির মাধ্যমে রক্ত ​​প্রবাহকে উত্তেজিত করে এবং শ্লেষ্মার নিঃসরণ পাতলা হয়ে যায়। এই ক্রিয়াটি সাধারণ সর্দি বা সাইনাস সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে কার্যকরী করে তোলে।

ব্যথা উপশমকারী, হজম ও আলসার প্রতিরোধক :

কাঁচা মরিচ থেকে উৎপাদিত তাপ ব্যথা উপশমকারী হিসাবে কাজ করতে পারে; এটি হজম এবং বিশ্বাসের বিপরীতে আলসার প্রতিরোধ করে। সবুজ মরিচে প্রচুর পরিমাণে ডায়েটরি ফাইবার থাকে তাই আপনাকে খাদ্য দ্রুত হজমে সহায়তা করতে পারে।

স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন বজায় রাখুন :

সবুজ মরিচ নিয়মিত খাওয়ার চেষ্টা করুন। এটি অ্যাথেরোস্ক্লেরোসিস হওয়ার সম্ভাবনা হ্রাস করতে সহায়তা করতে পারে। রক্তের কোলেস্টেরল হ্রাস করে রক্তের জমাট বাঁধাও রোধ করে যা পরবর্তীতে হার্ট অ্যাটাক বা স্ট্রোকের কারণ হতে পারে।

 মেজাজ boosters এবং ক্ষুধা বৃদ্ধি :

সবুজ মরিচের বিস্ময়কর স্বাস্থ্যসুবিধার একটি হলো এটি আপনার মেজাজ ভালো করতে পারে। মস্তিষ্ক থেকে মুক্তিপ্রাপ্ত এন্ডারফিন হরমোন যে কারণে আপনি সুখী হতে পারেন। অন্য দিকে, যদি আপনি সবুজমরিচ খান  এটা আপনার ক্ষুধা বাড়িয়ে দিবে।

 ক্ষত নিরাময় :

মেজাজ আরও ভাল করার পাশাপাশি সবুজ মরিচ  প্রাকৃতিক অ্যান্টি-বায়োটিক হিসাবে ভূমিকা পালন করে, যা আহত এলাকা বা সংক্রামিত এলাকায় নতুন রক্ত ​​পাঠানোর প্রক্রিয়া দ্রুততর করতে সহায়তা করে যাতে ক্ষত দ্রুত শুকিয়ে যায়। সুতরাং, যদি আপনার কোথাও আঘাত লাগে বা কেটে যাই তাহলে দ্রুত সবুজ মরিচ peppers খাওয়া ভুলবেন না। ফলাফল আপনি নিজের চোখেই দেখতে পারবেন।

 ব্রণপ্রতিকার :

ভিটামিন সি এবং ভিটামিন ই কারণে, সবুজ মরিচ ব্রণ প্রতিরোধ বা নিরাময়ের জন্য রক্ত ​​প্রবাহ বৃদ্ধি করতে পারে।

চামড়া জন্য তেল উৎপাদন :

মরিচ ত্বকের জন্য উপকারি ভিটামিন ই সমৃদ্ধ .এটি একটি প্রাকৃতিক তেল উত্পাদন একটি গুরুত্বপূর্ণ ফাংশন আছে। সুতরাং, সবুজ মরিচ খেলে আপনি ভালো ত্বকের অধিকারী হবেন।

 ব্যথা-হত্যাকারী :

যেমনটি আমরা আগে আলোচনা করেছি, সবুজ মরিচ  আমাদের মস্তিষ্ককে এন্ডোফিন হরমোন মুক্ত করতে সহায়তা করতে পারে, যা শুধুমাত্র আপনাকে সুখী করতে পারে তা নয়। এটি ব্যথা হ্রাস করার জন্যও কাজ করে, বিশেষ করে আপনার  বিভিন্ন সমস্যা যেমনঃ পেশী স্প্যাম, হারপিস, রিমুটিজম, বা ডায়াবেটিস। আপনি diligently খেলে, এটি ধীরে ধীরে আপনার ব্যাথা কমাবে।

ক্যান্সারের বিরুদ্ধে সুরক্ষা :

সবুজ কাঁচামরিচ অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট-এ পরিপূর্ণ যা প্রাকৃতিক স্কেভেঞ্জার হিসাবে কাজ করে ফ্রি র‌্যাডিকালগুলির বিরুদ্ধে শরীরকে রক্ষা করে। সবুজ মরিচও প্রস্টেটের সমস্যা উপসাগরীয় স্থানে রাখতে পারে।

 ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করুন :

কাঁচা মরিচে ক্যালোরি একেবারে শুন্য। ফাইবার রয়েছে। সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখে।সবুজ মরিচ আমাদের রান্নাঘরেরই একটি উপাদান।  এটি রক্তে শর্করার ভারসাম্য বজায় রাখে। ভিটামিন এ, ভিটামিন কে এবং ভিটামিন সি রক্তের শর্করার মাত্রা হ্রাস করার ভূমিকা রাখে, যা আমাদের ডায়াবেটিস থেকে প্রতিরোধ করে।

সবুজ মরিচ (peppers) অনেক ভিটামিন কন্টেন্ট আছে। এটি ভিটামিন এ, ভিটামিন কে, ভিটামিন সি, ভিটামিন বি 1, ভিটামিন বি 2। এর মধ্যে রয়েছে ক্যাপসিসিন সামগ্রী, প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, ফসফর, লোহা সামগ্রী, যা এই সামগ্রীটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসাবে কাজ করে যা আমাদের দেহে ফ্রি র‌্যাডিকালগুলি বন্ধ করতে পারে। এটি ডায়াবেটিসের মতো কিছু রোগের ঝুঁকি রোধ করার জন্য প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা বাড়ায়।

 ত্বক সুস্থ করা :

সবুজ মরিচ মরিচের ভেতর ভিটামিন সি এবং ভিটামিন ই এর উচ্চতর সামগ্রীর আরেকটি লক্ষ্য আমাদের ত্বকে স্বাস্থ্যকর করতে প্রাকৃতিক তেল উদ্দীপিত করে। ভিটামিন সি এবং ভিটামিন ই সামগ্রী এছাড়াও আমাদের ত্বককে স্কুরি থেকে আটকাতে পারে, আমাদের মুখমন্ডলকে মুখমন্ডল রাখতে পারে, প্রাথমিক ত্বককে এড়িয়ে চলতে পারে এবং ব্রণকে সমাধান করতে পারে।

আপনি কি জানেন যে, আমাদের শরীর কোলাজেন উৎপাদন করতে পারে না ? আমাদের অন্য উৎস থেকে কোলাজেন পেতে হবে।  কাঁচামরিচ কোলাজেন প্রদানকারী একটি খাদ্য। এটি আমাদের প্রয়োজন কারণ কোলাজেন আমাদের রক্তবাহী পদার্থ, অঙ্গ, ত্বক এবং হাড়ের যত্ন নিতে সাহায্য করতে পারে।

হার্ট-এর জন্য ভাল :

কাচাঁমরিচে কোনো চর্বি থাকে না।কাঁচামরিচে হার্ট রেট এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ উপাদান যেমনঃ পটাসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, লোহা  এবং ম্যাগনেসিয়াম সহ খনিজ সমৃদ্ধ।

হাড়ের যত্ন :

কাঁচামরিচে ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন কে উচ্চ পরিমাণে থাকে। কাঁচামরিচ অস্টিওপোরোসির ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে।

 কলেস্টেরল হ্রাস :

ক্যাপসিসিনের অন্য কাজ হচ্ছে রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রা হ্রাস করে এবং রক্তবাহী পদার্থকে বিষাক্ত পদার্থ থেকে পরিষ্কার করে শরীরকে সুস্থ রাখতে। এটি অত্যধিক ক্যালোরি পোড়াতে আপনাকে সাহায্য করতে পারে।

 আপনার চুল সুন্দর করুন :

কাঁচামরিচের প্রাকৃতিক চুল বৃদ্ধি সিমুলেটর হিসাবে একটি ভূমিকা আছে এবং হাইড্রোস্টেরোস্টেরন একটি ক্ষতিকারক প্রভাব থেকে follicle রক্ষা। এর কারণেই এটি একটি প্রাকৃতিক সিলিকন যা রক্তকে স্কেল এবং চুলের ফোঁটাতে বাড়ায়।

 এন্টি ব্যাকটেরিয়া এবং ছত্রাক  বিরোধী :

কাঁচামরিচের capsaicin আমাদের শরীরের অনেক উপকারী। সবুজ মরিচ (peppers) মধ্যে Capsaicin-কন্টেন্ট এর অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়া বৈশিষ্ট্য আছে যা আমাদের  মুখ, জিহবা, ও পাকস্থলীর খারাপ ব্যাকটেরিয়া হত্যা করতে পারে ।

 হজম শক্তি বাড়ায় :-

কারণ সবুজ মরিচে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে, এটি আমাদের পাচন প্রক্রিয়াকে দ্রুততর করতে সাহায্য করে।

ওজন হ্রাস করুন :-

আপনি আপনার ডায়েট প্রোগ্রামিংয়ের জন্য  সবজি হিসাবে কাঁচামরিচ ব্যবহার করতে পারেন। এটি ওজন হ্রাস করে।

ফুসকুড়ি ফেটে যাওয়ার জন্য সাহায্য করুন :-

সবুজ  মরিচগুলিতে ফাইটনট্রিয়েন্টস সামগ্রী রয়েছে যা মুখের উপর দাগ, ফুসকুড়ি এবং এমনকি ব্রণের জন্য কাজ করে।

কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ :

ফাইবার থাকায় কোষ্টকাঠিন্য দূর করে।

প্রতিরক্ষা সিস্টেম বাড়ান :

এতো ভিটামিন ও মিনারেলস-এর মিলনমেলা। তাই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ছোট্ট এই সবজিটির অনেক বড়ো অবদান রয়েছে।

আপনার সমস্ত খাবারে উদারভাবে সবুজ মরিচ যুক্ত করুন, কেবল স্বাদ বাড়ানোর জন্য নয়, আপনাকে এই কাঁচা মরিচ সমস্ত স্বাস্থ্যসুবিধা এবংঔষধি সুবিধাও প্রদান করতে পারে। সবথেকে মজার বিষয় হলো, কাঁচামরিচ জিরো ক্যালোরিযুক্ত অর্থাৎ এতে ক্যালোরি থাকে না। তাই এটি ডায়েটারদের আরও দ্রুত তাদের লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করে।

Share