করোনাভাইরাস ফুসফুসে আক্রমণ করে, সেই ফুসফুস সুস্থ্য রাখার উপায়।

আমাদের দেহকে সুন্দরভাবে টিকিয়ে রাখার জন্য ফুসফুসের স্বাস্থ্য ভালো রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যদি আপনার শরীরে অক্সিজেনের অভাব হয় তবে এটি আপনার স্বাস্থ্যের জন্য গুরুতর হতে পারে যা নিউমোনিয়া, সিওপিডি এবং হাঁপানি সহ গুরুতর শ্বাসকষ্টজনিত অবস্থার দিকে পরিচালিত করে। এই অসুস্থতাগুলি ফুসফুসে আক্রমণ করে যাতে শ্বাসকষ্ট হয়।

ফুসফুসকে স্বাস্থ্যকর রাখার একটি ভাল উপায় হল স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া। ফুসফুসকে কেবল খাবার দিলে হবে না তার ব্যায়ামও অত্যন্ত প্রয়োজন।

জন্মিলে মরিতে হবে। এটা একটা চিরন্তন সত্য। আমাদের সকলকে এই পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে একদিন চলে যেতে হবে। এটা জেনে ও মেনেই আমরা জীবনকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যায়। কিন্তু করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে শ্বাসকষ্টে এ কেমন মৃত্যু যা সবসময় তাড়া করে ফেরে। জনজীবনকে অতিষ্ট করে মৃত্যু যন্ত্রণার থেকে বেশি করে ভোগাচ্ছে।

সবসময় ভয়ে থাকি এই বুঝি করোনা নামক প্রাণঘাতী ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যায়। সচেতন থাকার পরেও কাজ হচ্ছে না। বাচ্চা-কাচ্চা, বৃদ্ধ অসুস্থ্য বাবা-মা নিয়ে সবসময় ভয়ে কাটে দিন-রাত। পরিচিত অনেকেই আক্রান্ত হচ্ছেন। এরপরেও আমরা সাহসের সাথে এগোবো। নিম্নলিখিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে ফুসফুসকে শক্তিশালী ও কর্মক্ষম রাখবো।

ফুসফুস সুস্থ্য রাখার উপায়:

ফুসফুস সুস্থ্য রাখার কার্যকর উপায়গুলো নিচে আলোচনা করা হল –

ধূমপান থেকে বিরত থাকুন :

তামাক প্রতি বছর বিশ্বব্যাপী ৮ মিলিয়নেরও বেশি লোককে হত্যা করে। ধূমপান শ্বাস প্রশ্বাসের সংক্রমণের জন্য একটি পরিচিত ঝুঁকির কারণ এবং শ্বাসজনিত রোগের তীব্রতা বৃদ্ধি করে। ধূমপায়ীদের অধূমপায়ীদের তুলনায় কোভিড-১৯ এ মৃত্যুহার অনেক বেশি। 

কোভিড-১৯ একটি সংক্রামক রোগ যা প্রাথমিকভাবে ফুসফুসকে আক্রমণ করে। ধূমপান ফুসফুস ফাংশনকে ক্ষতিগ্রস্থ করে যার ফলে শরীরের পক্ষে করোনভাইরাস বা অন্যান্য রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করা কঠিন হয়ে পড়ে।

ফুসফুসের জন্য উপকারি খাবার :

একটি স্বাস্থ্যকর ডায়েট একটি স্বাস্থ্যকর জীবনের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন (WHO) এর মতে, ২৩৫ মিলিয়ন মানুষ ফুসফুসের রোগে আক্রান্ত। সুতরাং, আপনি যদি আপনার ফুসফুসের স্বাস্থ্যের উন্নতি করতে চান তবে নিশ্চিত করুন যে আপনি এমন কিছু স্বাস্থ্যকর খাবার অন্তর্ভুক্ত করেছেন যা আপনার ফুসফুসকে সক্রিয় ও কার্যকর রাখতে সহায়তা করবে। নিচে ফুসফুসের জন্য উপকারি খাবার দেয়া হলো –

  • পর্যাপ্ত বিশুদ্ধ পানি
  • ফ্যাটি ফিশ
  • আপেল
  • আদা
  • আখরোট
  • ব্রোকলি
  • রসুন
  • হলুদ
  • মটরশুটি
  • বিভিন্ন ধরণের জাম
  • বিভিন্ন ধরণের শিম

নিয়মিত নিঃশ্বাসের ব্যায়াম করুন:

ফুসফুস ভালো রাখতে হলে ব্যায়ামের কোনো বিকল্প নেই। ফুসফুস ভালো রাখার অন্যতম প্রধান শর্ত নিয়মিত ব্যায়াম করা। তবে সবথেকে কার্যকরী ব্যায়াম হলো Breathing Yoga বা নিঃশ্বাসের ব্যায়াম। নিঃশ্বাসের এই ব্যায়ামগুলি ফুসফুসের ফাংশন এবং শ্বাস প্রশ্বাসের সহনশীলতা উন্নতি করে। এছাড়াও স্ট্রেস হ্রাস করে এবং কার্ডিওভাসকুলার ফাংশন উন্নত করে। নিচে কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ নিঃশ্বাসের ব্যায়াম উল্লেখ করা হলো –

  • Alternative Nostril Breathing বা অনুলোম বিলম
  • Skull Shining Breath বা কপালভাতি
  • Coherent breathing
  • Sitali breath
  • Deep breathing
  • Lion’s breath
  • Breath focus technique
  • Diaphragmatic breathing

ঘরে প্রচুর বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা রাখুন :

বাইরে দূষণের মাত্রা বেশি থাকায় আমরা প্রায়শ বাইরে বেরোতে ভয় পাই। তবে অনেকেই বুঝতে পারেন না যে, ঘরের দূষণও ক্ষতি করতে পারে। বাড়ির ভিতরে আমরা অনেক সময় ব্যয় করি। এখন আরও যত্ন সহকারে এটি সম্পর্কে চিন্তা করুন। আপনি আপনার বাড়ি, আপনার অফিস, আপনার স্কুল এবং দোকান এবং রেস্তোঁরাগুলিতে ব্যয় করার সমস্ত সময় অন্তর্ভুক্ত করুন।

আমরা আসলে আমাদের প্রায় ৯০% সময় ভিতরে ব্যয় করি, তাই অন্দর বায়ু আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। দূষিত অভ্যন্তরীণ বাতাসের গুণাগুণ ফুসফুসের রোগের সাথে সম্পর্ক রয়েছে – যেমন হাঁপানি এবং অ্যালার্জি, দীর্ঘস্থায়ী সিওপিডি এবং ফুসফুসের ক্যান্সার। এজন্য ঘরে প্রচুর বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা রাখুন এবং অভ্যন্তরীণ বাতাস বিশুদ্ধ রাখুন।

Flu ভ্যাকসিন এবং নিউমোনিয়া ভ্যাকসিনের টিকা নিন :

টিকা বা ভ্যাকসিন অনেক ক্ষেত্রে বেশ কার্যকরী। টিকা বা ভ্যাকসিন নিতে ভূল বা দেরি করবেন না। হাতের নাগালে অপশন থাকলে Flu ভ্যাকসিন এবং নিউমোনিয়া ভ্যাকসিনের টিকা নিন।

আরও পড়ুন:

করোনাভাইরাস ফুসফুসে আক্রমণ করে, সেই ফুসফুস সুস্থ্য রাখতে কি কি খাবেন।

Share